• ক্রিকেটারদের আলাপ
  • " />

     

    ড্রেসিংরুমে এসে আকরামকে ধমকে গিয়েছিলেন ওয়াসিম

     

    আড্ডাটা চুটিয়ে হচ্ছিল খালেদ মাসুদ পাইলট, আকরাম খান ও মিনহাজুল আবেদীন নান্নুর মধ্যে। তবে সবার মধ্যে একটা গোপন অপেক্ষা, ওয়াসিম আকরাম আসবেন কখন? পাকিস্তানি কিংবদন্তির বাংলাদেশের সাথে স্মৃতি কম নয়, গত বিশ্বকাপে পাকিস্তান-ইংল্যান্ড ম্যাচে ধারাভাষ্য দেওয়ার সময় অনেকটা রোমন্থন করেছিলেন তা। আবারও সেই স্মৃতি ভীড় করে এলো। শেষের দিকে আকরাম খান মনে করিয়ে দিলেন, ওয়াসিম আকরাম এশিয়া কাপের সময় একবার ড্রেসিংরুমে ধমকই দিয়ে গিয়েছিলেন তাকে।

    ওয়াসিমের বাংলাদেশের সাথে স্মৃতি তার অনেক আগে থেকে শুরু। ক্যারিয়ারের শুরু থেকে তো খেলেছেনই বাংলাদেশের বিপক্ষে, ১৯৯৪ সালে প্রথমবার খেলতে এসেছিলেন ক্লাব ক্রিকেটে। আবাহনীর তখনকার সভাপতি আহম মুস্তফা কামাল নিয়ে এসেছিলেন ওয়াসিমকে। সেই স্মৃতিটা মনে আছে এই পাকিস্তান গ্রেটের,  ‘আমার যদ্দুর মনে আছে আমি দেখতে চেয়েছিলাম বাংলাদেশ কতটা সিরিয়াস ছিল। আর্থিক ব্যাপার তো ছিলই, আমার মনে আছে কামাল ভাই আমাকে হঠাৎ করেই আসতে বলেছিলেন। উনি আমাকে বলেছিলেন, আমাকে আসতেই হবে। আমি জানতাম না, বাংলাদেশে এতটা ক্লাবের প্যাশন আছে। আমি অবাক হয়ে দেখেছিলাম, পুরো মাঠ গ্যালারিতে ভরে আছে। আমি কখনোই ভাবিনি, ক্রিকেট এখানে এত বড়। ক্রিকেট, ফুটবল, হকি মিলিয়ে এখানে এত ক্লাব তা ভাবিনি।’

    তবে আবাহনীর হয়ে আকরামের অভিষেক সুখের হয়নি খুব। সেই ম্যাচে ৯ ওভারে ৪০ রান দিয়ে নিজে ৩ উইকেট নিয়েছিলেন বটে (সেটা আজ তামিমই তাকে মনে করিয়ে দিলেন), কিন্তু ম্যাচটা হেরে গিয়েছিল আবাহনী। আকরামের শুধু মনে আছে, গ্যালারিঠাসা মাঠে একটা নো বল করেছিলেন। তবে সেই ম্যাচ হেরে আবাহনীর শিরোপাস্বপ্ন পণ্ড হয়ে যায়।

    বাংলাদেশকে নিয়ে ওয়াসিমের সবচেয়ে বড় স্মৃতি অবশ্যই ৯৯ বিশ্বকাপ। সেবার বাংলাদেশ ওয়াসিমের পাকিস্তানকে হারিয়ে চমকে দিয়েছিল সবাইকে। টেস্ট স্ট্যাটাস পাওয়ার পথেও এগিয়ে গিয়েছিল কিছুটা। ওয়াসিম সেই ম্যাচ নিয়েও আগেও কথা বলেছেন অনেক। আজ আবারও বললেন, স্মৃতি অনেকটা ফিকে হয়ে এসেছে। তবে ব্যাটে-বলে সেই ম্যাচে বাংলাদেশই ছিল শ্রেয়তর দল। বিশেষ করে টসে জিতে পাকিস্তানের রান তাড়া করতে পারার পরীক্ষাটা সেদিন কাজে লাগেনি, সেটা মনে আছে আকরামের।

    তবে আজকের আড্ডার ওয়াসিম-সংক্রান্ত মজার স্মৃতিটা বললেন আকরাম খানই। ১৯৯৫ এশিয়া কাপের কথা। তখন ওয়াসিম পাকিস্তানের অধিনায়ক, আর আকরাম বাংলাদেশের। শ্রীলংকা ও ভারতের বিপক্ষে প্রথম দুই ম্যাচ ছিল বাংলাদেশের, দুই ম্যাচেই হেরে গিয়েছিল বাংলাদেশ। তখন বাংলাদেশের সঙ্গে ম্যাচটা রান রেট বাড়ানোর উপলক্ষ হিসেবেই দেখত দলগুলো। তো, পাকিস্তানের সঙ্গে ভারতের ম্যাচের পর ওয়াসিমের সাথে দেখা আকরামের। ওয়াসিম জানতে চাইলেন, আগামীকাল পরিকল্পনা কী। আকরাম বললেন, তিনি টসে জিতে বল করবেন। কিন্তু টস করতে নামার আগে মিনহাজুল বললেন, ‘আকরাম, ফিল্ডিং নিলে এই গরমে পুরো ৫০ ওভার মাঠে থাকতে হবে। আর ওরা রানের পাহাড়ও গড়বে। আমরা তার চেয়ে ব্যাটিং-ই নিই।’ আকরাম সিদ্ধান্তটা বদলে ফেললেন, ব্যাটিং নিলেন। ম্যাচটা বাংলাদেশ হেরেছিল। তবে পরে ওয়াসিম ড্রেসিংরুমে এসে পাকড়াও করেছিলেন আকরামকে, ‘তোমার তো ব্যাটিং নেওয়ার কথা ছিল!’ আকরাম খানের মনে আছে, রীতিমতো ভয়ই পেয়ে গিয়েছিলেন তিনি।

    অদ্ভুতই বটে, রান রেটে পিছিয়ে থাকার জন্য শেষ পর্যন্ত সেই কাপে ফাইনালে খেলা হয়নি পাকিস্তানের!