• ক্রিকেট, অন্যান্য
  • " />

     

    টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পিছিয়ে গেলে অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া মৌসুম বাদ দিয়ে আইপিএল খেলবেন স্মিথ

    টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পিছিয়ে গেলে অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া মৌসুমের শুরুর দিকের অংশ মিস করে হলেও আইপিএল খেলতে আপত্তি নেই স্টিভেন স্মিথের। অস্ট্রেলিয়ায় অক্টোবর-নভেম্বরে হওয়ার কথা আছে এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের, তবে সেটি পিছিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা জোরালোই হচ্ছে। শেষ পর্যন্ত সেটি যদি পিছিয়ে যায়, এবং ভারতের ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক লিগ হয়, সেক্ষেত্রে স্মিথ খেলবেন আইপিএলেই।

    আইপিএলে রাজস্থান রয়্যালসের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ স্মিথ, এবারের আসরে তাকে অধিনায়কের দায়িত্বও দিয়েছে ফ্রাঞ্চাইজিটি। সোমবার নিউ সাউথ ওয়েলসের সঙ্গে সিডনিতে অনুশীলন করতে এসে এক সাক্ষাৎকারে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ এবং আইপিএল নিয়ে নিজের মত দিয়েছেন স্মিথ, “দেশের হয়ে বিশ্বকাপ খেলাটা সবচেয়ে বড় বিষয়, সেটা হোক ওয়ানডে বিশ্বকাপ অথবা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। তাই এই আসরগুলোকেই আমি প্রাধান্য দিব। তবে যদি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পিছিয়ে যায়, আর আইপিএল অনুষ্ঠিত হয় তাহলে আমি সেখানে খেলব।”
     


    ক্রিকেট কবে নাগাদ মাঠে ফিরতে পারে বা খেলোয়াড়রা আসলে বিষয়টি নিয়ে কী ভাবছেন এমন প্রশ্নের জবাবে স্মিথের সোজাসাপ্টা উত্তর, “আশা করি এই বিষয়ে দ্রুতই সিদ্ধান্ত আসবে। তাই এটা নিয়ে আলাদা করে কিছু ভাবছি না। সরকার এবং বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুসরণ করে নিজেদের কাজ চালিয়ে যাওয়াটাই এখন মূল বিষয়। যদি খেলা দ্রুত শুরু করা সম্ভব হয় তাহলে ভালো, না হলেও অসুবিধা নেই। কারণ পৃথিবীতে এখন যা হচ্ছে সেসবের সামনে ক্রিকেট খুব একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নয়। যখনই খেলা শুরু হোক না কেন, আমরা শারীরিক, মানসিক সব দিক দিয়ে তৈরি হয়েই ফিরব।”

    করোনাভাইরাসের কারণে ক্রিকেটে কিছু নিয়মের পরিবর্তন আসতে পারে, যার মাঝে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে বল মসৃণ করতে থুতু-লালা ব্যবহারের ক্ষেত্রে আইসিসির বিধি-নিষেধ। এই নিয়মের ফলে বোলারদের বেশ অসুবিধা হবে বলেই মত স্মিথের, “আমি সবসময়ই বল এবং ব্যাটের মাঝে সুষ্ঠু প্রতিযোগিতা দেখতে চাই। আর একজন ব্যাটসম্যান হিসেবেও আমি বলব, নতুন নিয়ম কার্যকর হলে সেটা প্রতিযোগিতার জন্য মোটেই ভালো হবে না। বলে গ্রিপ ঠিকমতো পেতে আমি নিজেই হাতে থুতু নিয়ে বল মসৃণ করার চেষ্টা করি। তাই এটা পরিবর্তন করা মোটেও সহজ হবে না।”

    আগস্টে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার ঘোষণা দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া, আগামী ঘরোয়া গ্রীষ্মের পূর্ণাঙ্গ সূচিও দিয়েছে তারা। তবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসেনি এখনও, ১০ জুন পর্যন্ত এ নিয়ে আলোচনা স্থগিত রেখেছে আইসিসি। তবে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহীসহ বেশ কয়েকজনের মত, নির্ধারিত সময়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন করাটা হবে ঝুঁকিপূর্ণ। 

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন