• লা লিগা
  • " />

     

    লা লিগার শেষ ৬ ম্যাচ: বার্সেলোনা-রিয়াল মাদ্রিদের পথ কতটা কঠিন?

    লা লিগার চলতি মৌসুমে টেবিলের শীর্ষস্থান নিয়ে লড়াই জমে উঠেছে। করোনার কারণে খেলা বন্ধ হওয়ার আগে থেকেই রিয়াল মাদ্রিদ এবং বার্সেলোনার মাঝে চলছে দারুণ এই দ্বৈরথ। দুই দলের প্রতিটি ম্যাচেই শীর্ষস্থানের হাত-বদল হচ্ছে। তবে লা লিগায় চলতি মৌসুম এখন অন্তিম পর্বে পা দিচ্ছে। আর মাত্র ৬ ম্যাচ করে বাকি রয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ এবং বার্সেলোনার। ৩২ ম্যাচ শেষে বার্সেলোনার চেয়ে ২ পয়েন্ট এগিয়ে থেকে আপাতত শীর্ষে রয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। তবে দুই দলের সামনেই লিগের শেষভাগে রয়েছে কঠিন, চ্যালেঞ্জিং কিছু ম্যাচ।

    সেল্টা ভিগোর সঙ্গে পয়েন্ট হারিয়ে এরই মধ্যে শীর্ষস্থান খুইয়েছে বার্সেলোনা। তাদের পরবর্তী ম্যাচ ডিয়েগো সিমিওনের অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে। ওয়ান্ডা মেট্রোপলিতানোতে চলতি মৌসুমে এই ফিক্সচারের প্রথম ম্যাচে শেষ মুহূর্তের মেসি ম্যাজিকে পার পেয়েছিল বার্সেলোনা। তবে এবার পরিস্থিতি ভিন্ন। সেল্টার সঙ্গে ড্র এবং বার্সেলোনায় চলমান গৃহদাহ, সবমিলিয়ে ঘরের মাঠে সিমিওনের দলের চ্যালেঞ্জ টপকানো মোটেও সহজ হবে না বার্সেলোনার জন্য।

    বার্সেলোনার পরের ২ ম্যাচ যথাক্রমে ভিয়ারিয়াল এবং এস্পানিওলের সঙ্গে। ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষে মাদ্রিদকেও খেলতে হবে ১৬ জুলাই। লিগে বর্তমানে ৫-এ থাকা দলটির বিপক্ষে বার্সেলোনা মৌসুমের প্রথম ম্যাচে ২-১ গোলে জিতলেও মাদ্রিদ ২-২ গোলে ড্র করেছিল। দুই দলকেই তাই ‘ইয়েলো সাবমেরিন’দের বিপক্ষে সতর্ক থাকতে হবে। তবে ৯ জুলাই নগর প্রতিদ্বন্দ্বী এস্পানিওলের বিপক্ষে বার্সার ম্যাচটি অপেক্ষাকৃত সহজ হওয়ার কথা। লা লিগায় টেবিলের একেবারে তলানিতে থাকা বার্সার এই কাতালান প্রতিবেশীর জন্য অবনমন এড়ানোটা ক্রমেই অসম্ভবে পরিণত হচ্ছে।

    আর চলতি মৌসুমে বার্সেলোনার শেষ ৩ ম্যাচ টেবিলের দ্বিতীয় ভাগে থাকা ভালাদোলিদ, ওসাসুনা এবং আলাভেসের বিপক্ষে। দলগুলোর বিপক্ষে মৌসুমের প্রথম ম্যাচে বার্সেলোনার আধিপত্য এবং তাদের বর্তমান ফর্ম বিচারে এই ম্যাচগুলো খুব একটা কঠিন হওয়ার কথা নয় কিকে সেতিয়েনের দলের জন্য।

    অন্যদিকে রিয়াল মাদ্রিদের পরের ম্যাচ গেটাফের বিপক্ষে। এই মৌসুমে  প্রথম ম্যাচে গেটাফেকে ৩-০ গোলে হারিয়েছিল রিয়াল। তাই এই ম্যাচটি তেমন একটা কঠিন হওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। তবে ঘরের মাঠে বিলবাওয়ের বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র করা জিনেদিন জিদানের দলের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ হতে পারে তাদের মাঠে ফিরতি ম্যাচটি।

    বিলবাওয়ের সঙ্গে ম্যাচের পর বাকি ম্যাচগুলোতে ভিয়ারিয়াল ছাড়াও গ্রানাডা, আলাভেস এবং লেগানেসের বিপক্ষে খেলতে হবে লস ব্লাঙ্কোসদের। বড় কোনও অঘটন না ঘটলে এই ম্যাচগুলো মাদ্রিদের শিরোপার দৌড়ে খুব একটা প্রভাব ফেলার কথা নয়।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন