• লা লিগা
  • " />

     

    পেলে, পুসকাস, রোমারিওদের এলিট ক্লাবে মেসি

    ক্যারিয়ারের ৭০০ তম গোলের মাইলফলক ছুঁয়েছেন লিওনেল মেসি। অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের সঙ্গে ম্যাচের পর বার্সেলোনার হয়ে ৭২৮ ম্যাচে  তার গোল দাঁড়িয়েছে ৬৩০টি। বাকিগুলো আর্জেন্টিনার হয়ে ১৩৮ ম্যাচে। ৭০০ গোল করে এলিট ক্লাবে ঢুকে গেছেন লিওনেল মেসি। যেখানে আগে থেকেই আছেন তার প্রতিদ্বন্দ্বী ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। আছেন পেলে, রোমারিও, ফেরেঙ্ক পুসকাসের মতো মহারথীরাও। 


    বর্তমান সময়ে খেলা চালিয়ে যাওয়াদের মাঝে আর শুধু ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর আছে এই অর্জন। মেসি এখন পর্যন্ত ক্যারিয়ারে ৮৬২ ম্যাচ খেলে এই মাইলফলকের দেখা পেয়েছেন, রোনালদোর অবশ্য মেসির চেয়ে ১১১ ম্যাচ বেশি খেলতে হয়েছিল এই অর্জনের অংশীদার হতে।

    বর্তমান সময়ে খেলতে থাকা ফুটবলারদের মাঝে সবচেয়ে বেশি গোল করা ৫ ফুটবলার

    ১. ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো - ৭২৮ গোল (১০০৫ ম্যাচ)

    ২. লিওনেল মেসি - ৭০০ গোল (৮৬২ ম্যাচ)

    ৩. ইব্রাহিমোভিচ - ৫৪০ গোল (৯০৭ ম্যাচ)

    ৪. লুইস সুয়ারেজ - ৪৭২ (৬৩৭ ম্যাচ)

    ৫. রবার্ট লেভানডফস্কি - ৪৬৬ (৬৯৭ ম্যাচ)

    ফুটবল ইতিহাসে সপ্তম খেলোয়াড় হিসেবে ৭০০ গোলের ক্লাবে নাম লিখিয়েছেন মেসি।  তার সামনে আছেন আরও ৬ জন। 

    ৬. ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো

    গত অক্টোবরে পর্তুগালের হয়ে ইউরো বাছাইয়ের ম্যাচে ইউক্রেনের বিপক্ষে পেনাল্টি থেকে গোল করে এই মাইলফলক ছুঁয়েছিলেন রোনালদো। দল হেরে গেলেও দিনটি ব্যক্তিগত অর্জনের দিক দিয়ে স্মরণীয় করে রেখেছিলেন তিনি। আর এখনও খেলা চালিয়ে যাওয়াদের মাঝেও মোট ক্যারিয়ার গোলের হিসেবে সবচেয়ে এগিয়ে এই পর্তুগিজ মহাতারকা।


    ৫. গার্ড মুলার

    পশ্চিম জার্মানি এবং বায়ার্ন মিউনিখের হয়ে খেলা ‘ডের বোম্বার’ খ্যাত গার্ড মুলার রয়েছেন তালিকার পঞ্চম স্থানে। পেশাদার ক্যারিয়ার ৭৯৩ ম্যাচ খেলে ৭৩৫ গোল করেছিলেন এই বাভারিয়ান কিংবদন্তি। যার মাঝে ১৪ টি গোল করেছিলেন ফুটবল দুনিয়ার সবচেয়ে বড় উৎসব বিশ্বকাপে।


    ৪. ফেরেঙ্ক পুসকাস

    হাঙ্গেরির কিংবদন্তি স্ট্রাইকার ফেরেঙ্ক পুসকাস ক্যারিয়ারে ৭৫৪ ম্যাচ খেলে ৭৪৬ গোল করেছিলেন। ‘গ্যালোপিং মেজর’ উপনামে পরিচিতি এই কিংবদন্তি পেশাদার ফুটবল ক্যারিয়ারে হনভেদ এবং রিয়াল মাদ্রিদের হয়েও খেলেছিলেন। ১৯৪৩ থেকে ১৯৬৬ সাল পর্যন্ত নিজের পায়ের জাদুতে ফুটবল অন্তপ্রাণদের মুগ্ধ করেছিলেন তিনি। ফিফার বাৎসরিক ‘বিশ্বসেরা গোলে’র পুরস্কারটির নামও এই কিংবদন্তির নামের ‘পরেই রাখা হয়েছে।


    ৩. রোমারিও

    রেক স্পোর্ট সকার স্ট্যাটিস্টিকস ফাউন্ডেশনের (আরএসএসএসএফ) হিসেব অনুযায়ী, ৯৯৩ টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচে ৭৭২ গোল করেছিলেন ব্রাজিলিয়ান গ্রেট রোমারিও। ১৯৮৫ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারে পাঁচ মহাদেশে নিজের জহর দেখিয়েছিলেন এই কিংবদন্তি। আর ১৯৯৪ সালে ব্রাজিলকে বিশ্বকাপ এনে দিতেও কার্যকরী ভূমিকা রেখেছিলেন তিনি, আসরে ৫ গোল করা রোমারিও প্রতিপক্ষের গোলের সামনে রীতিমত ত্রাস ছড়িয়েছেন।


    ২. জোসেফ বিকান

    স্লাভিয়া প্রাগের গোলমেশিনের রেকর্ড শুনলে যে কারোই চোখ কপালে উঠে যাওয়ার কথা। মাত্র ৫৩০ টি প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ খেলে ৮০৫ গোল করেছিলেন জোসেফ বিকান। আরএসএসএসএফে’র তথ্য অনুযায়ী অফিসিয়াল ম্যাচের হিসাবে ফুটবল ইতিহাসে সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা তিনিই। ১৯২৮ থেকে ১৯৫৫ পর্যন্ত ফুটবল পায়ে আলো ছড়িয়েছেন তিনি।


    ক্যারিয়ারে ৩ টি দেশের হয়ে আন্তর্জাতিক ফুটবল খেলেছেন বিকান, যার মাঝে দুটি অবশ্য এখন বিলুপ্ত। ১৯৩৩-৩৬ পর্যন্ত অস্ট্রিয়া, ১৯৩৮-৪৯ পর্যন্ত চেকোস্লোভাকিয়ার হয়ে খেলেছেন তিনি। মাঝে ১৯৩৯ সালে বোহেমিয়া এবং মোরাভিয়ার হয়েও ১ ম্যাচ খেলেছিলেন তিনি, সেই ম্যাচে আবার হ্যাটট্রিকও করেছিলেন বিকান।

    ১. পেলে

    প্রথম স্থানটির জন্য নিশ্চয়ই অন্য কোনও নাম কল্পনাতেও আসেনি আপনার। গিনেজ বিশ্ব রেকর্ডের হিসেবে ১২৭৯ গোল করে ইতিহাসের সবচেয়ে বেশি গোল করা খেলোয়াড় ৩-বারের বিশ্বকাপজয়ী পেলে। যদিও পেলের এই রেকর্ডটি নিয়ে কিছুটা বিতর্ক রয়েছে। কারণ আরএসএসএসএফে’র তথ্যমতে, ১৯৫৬ থেকে ১৯৭৭ সাল পর্যন্ত পেশাদার ফুটবল খেলা পেলের গোলসংখ্যা ৭৬৭।


     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন