• লা লিগা
  • " />

     

    মাদ্রিদ ছেড়ে বেল কোথাও যাচ্ছেন না, দাবি তার এজেন্টের

    রিয়াল মাদ্রিদের বেঞ্চে বসে থেকেই পার করতে হয়েছে এই বছরের অনেকটা। সেখানে বসে গ্যারেথ বেলের হাসিতামাশার পর গুঞ্জন উঠেছে, তাহলে কি নতুন মৌসুমেই দলবদল করছেন এই উইঙ্গার? তবে বেলের এজেন্ট জোনাথন বার্নেট বলেছেন, তার মক্কেল থাকছেন রিয়ালেই।

    ২০১৩ সালে দলবদলের নতুন রেকর্ড গড়ে বেলকে নিয়ে এসেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। প্রথম কয়েকটা মৌসুম নিয়মিতই ছিলেন, লা ডেসিমাসহ আরও কিছু শিরোপায় রেখেছিলেন বড় অবদান। কিন্তু জিনেদিন জিদান আসার পর রিয়ালের মূল পরিকল্পনা থেকে কিছুটা সরে যান বেল। দুই বছর আগে জিদান চলে গেলেও থেকে যান ভেল। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম বলছে, বেলকে বিক্রি করে দেবে রিয়াল এই শর্তেই জিদান আবার ফিরে এসেছিলেন। তবে গত মৌসুমে সেটা আর করতে পারেনি রিয়াল। শোনা গিয়েছিল বেল চীনে এতে পারেন সেটাও হয়নি। এই মুহূর্তে বেলের বেতন সপ্তাহে ৬ লাখ পাউন্ড, রিয়ালে সবার চেয়ে বেশি। রিয়ালও চেয়েছিল বেলকে বিক্রি করে এই বেতনের ভার কমাতে। এখন পর্যন্ত সেটা করতে পারেনি।

    এত কিছুর মধ্যে বেল নিজেও চলে যেতে পারেন এই সম্ভাবনা উঠেছিল। তবে তার এজেন্ট এই সম্ভাবনা আপাতত উড়িয়ে দিয়েছেন, ‘গ্যারথ খুব ভালো আছে। এখনও দুই বছর বাকি আছে তার চুক্তির। মাদ্রিদে সে খুব ভালো আছে। শহরটা সে পছন্দ করে। সে কোথাও যাচ্ছে না।’ বাকিটা বেনেট ছেড়ে দিলেন রিয়াল ম্যানেজমেন্ট আর বাস্তবার ওপর, ‘অবশ্যইই সে স্কোয়াডে বাকিদের মতোই ভালো। এখন তাকে নিয়ে কী করা হবে সেটা ক্লাব আর মিস্টার জিদান বুঝবেন। তাকে কেনার মতো সামর্থ্যও আসলে খুব বেশি ক্লাবের নেই। ও যে নিয়মিত খেলতে পারছে না, সেটা ওর জন্য অবশ্যই ক্ষতি। কিন্তু বেল মাদ্রিদ ছাড়ছে না।’

    অথচ বেলের প্রতি জিদানের ব্যবহারকে ‘ন্যাক্কারজনক’ বলেছিলেন এই বেনেটই। কিন্তু এখন তার কন্ঠে অনেকটাই আপোসের সুর, ‘জিদানের সাথে বেলের কোনো সমস্যা নেই। জিদান খুবই সফল একজন কোচ। এখানে কোনো ঘৃণা বা সঙ্ঘাত নেই, উনি বেলকে খেলাচ্ছেন। স্রেফ এটাই। বেল নিয়মিত অনুশীলন করছে, শারীরিকভাবে সে ফিট আছে।’

    গত পরশু মৌসুমের শেষ ম্যাচেও বেলকে ২২ জনের স্কোয়াডে রাখেননি জিদান। এই মৌসুমে যা হয়েছে, এরপর বেলের রিয়াল ছাড়াটা সময়ের ব্যাপার মনে হচ্ছিল। এবার কি সেটা পিছিয়ে যাবে?

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন