• লা লিগা
  • " />

     

    করোনায় বার্সেলোনার ক্ষতি ৩০০ মিলিয়ন ইউরো

    করোনাভাইরাসে ইউরোপের শীর্ষ ফুটবল ক্লাবগুলো বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পড়বে, সেটা অনুমিতই ছিল। তবে এতদিন ক্ষতির অংকের ব্যাপারে নির্দিষ্ট করে কিছু জানা যায়নি। এবার স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনা জানিয়েছে, করোনাভাইরাসের কারণে ক্লাবটির ক্ষতি হয়েছে ৩০০ মিলিয়ন ইউরো।

    এই মৌসুমে ইতিহাসে প্রথম ফুটবল ক্লাব হিসেবে ১ বিলিয়ন ইউরো আয়ের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছিল বার্সেলোনা। মার্চে করোনাভাইরাসের কারণে বিশ্ব স্থবির হয়ে যাওয়ার আগ পর্যন্ত সেই লক্ষ্যে কাজও করছিল তারা। কিন্তু করোনা মহামারীর ফলে এখন উল্টো বড় অংকের ক্ষতির হিসাব কষতে হচ্ছে তাদের।


    এদিকে করোনার কারণে ক্ষতির প্রভাব নতুন মৌসুমে ক্লাবের বাজেটেও পড়েছে বলে নিশ্চিত করেছে বার্সেলোনা। প্রথম তিন মাসে পৃথিবীর অন্য ক্লাবগুলোর মতো বার্সেলোনাকেও সবকিছু বন্ধ কর দিতে হয়েছিল। ক্লাব শপ, ক্লাব জাদুঘর বন্ধ হয়ে গিয়েছিল, আর দর্শকরা মাঠে ফিরতে না পারায় ম্যাচ ডে-র আয়ও নেই। এছাড়া খেলা না থাকায় টিভি স্বত এবং স্পনসরশীপ চুক্তি গুলো থেকেও আয় কমেছে তাদের। এগুলোর মাধ্যমে বার্সেলোনা বছরে কোটি কোটি আয় করত।

    আর তাই ২০১৯-২০ মৌসুমে ১ বিলিয়ন আয়ের লক্ষ্যমাত্রার ৩০ ভাগ কমে যাবে বলে জানিয়েছে বার্সেলোনা। আর এই ক্ষতি পোষাতে আগামী মৌসুমে বিভিন্ন খাতে খরচ কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ক্লাবটি। তবে কোন কোন খাতে খরচ কমানোর কথা ভাবছে, সেটা নিশ্চিত করেনি তারা।

    এদিকে করোনা মহামারীর শুরুর দিকেই খেলোয়াড়দের বেতন ভাতা ৭০ ভাগ কমিয়ে দিয়েছিল বার্সেলোনা। আর দলের সিনিয়র খেলোয়াড়দের অনেককেই এই দলবদলের ছেড়ে দিতে চাইছে দলটি, এতে করে তাদের বেতন-ভাতার পেছনে তাদের বাৎসরিক ব্যয়ের পরিমাণও কমবে।

    ২৭ সেপ্টেম্বর ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে নতুন মৌসুম শুরু করবে বার্সেলোনা।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন