• লা লিগা
  • " />

     

    নতুন খেলোয়াড় এনে স্কোয়াড় আর বড় করতে চান না জিদান

    ইউরোপে দলগুলো যখন শক্তি বাড়িয়ে নিচ্ছে তখন লা লিগা চ্যাম্পিয়নরা একরকম পণ করে বসেছে নতুন খেলোয়াড় না কেনার ব্যাপারে। প্রেসিডেন্ট ফ্লোরেন্তিনো পেরেজের কথামতোই অবশ্য হচ্ছে সব। এই মৌসুমে রিয়ালে নতুন খেলোয়াড় আসার সম্ভাবনাও তাই কম। কিন্তু তা নিয়ে কোনো খেদ নেই কোচ জিনেদিন জিদানের। যারা আছেন, বরং তাদের নিয়েই খুশি রিয়াল কোচ।

    তরুণ মার্টিন ওডেগার্ড ও বোর্হা মায়োরালকে ধার থেকে ফিরিয়েছে রিয়াল। এদের ভেতর ওডেগার্ড রিয়ালের হয়ে লা লিগার দুই ম্যাচেই খেলেছেন। তবে মায়োরালের দল ছাড়ার গুঞ্জন আছে বাজারে। দলে নতুন খেলোয়াড় ভেড়ানোর সম্ভাবনা একেবারে উড়িয়ে না দিলেও জিদান বলছেন এমনিতেই তার স্কোয়াড বড়।

    "এমনিতেই তো আমার বড় স্কোয়াড আছে। নতুন খেলোয়াড় এনে এটারে আরও বড় করতে হবে কেন? এখনই দল বাছাই করা করা কঠিন কাজ হয়ে দাঁড়িয়েছে। যারা আছে তারা সবাই খুব ভালো, আমি তাদের নিয়ে আসলেই খুশি।"- রিয়াল ভায়াদোলিদের বিপক্ষে ম্যাচের আগেরদিন সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন জিদান।

    লা লিগায় প্রথম ম্যাচে সোসিয়েদাদের সঙ্গে ড্র করলেও দ্বিতীয় ম্যাচে সার্জিও রামোসের গোলে জয় পেয়েছে রিয়াল। এই মৌসুমে নতুন কাউকে দলে না ভেড়ালেও দল খালি করার ব্যাপারটি ভালোভাবেই সেরেছে তারা। গ্যারেথ বেল, হামেস রদ্রিগেজরা ক্লাব ছেড়ে গেছেন। রিয়ালের শেষ ম্যাচে বেটিসের বিপক্ষে লুকা ইয়োভিচ আর বোর্হা মায়োরালও খেলেছেন। তবে দুই স্ট্রাইকারের কেউই গোল পাননি। দলবদল শেষ হওয়ার আগে এই দুইজন ক্লাব ছাড়বেন কি না সে প্রশ্নের জবাবে স্পষ্ট করে কিছু জানাননি জিদান। তবে মেক্সিকান স্ট্রাইকার রাউল হিমেনেজকে রিয়াল দলে ভেড়াবে এই খবর যে পুরোপুরি গুজব তা সরাসরিই বলেছেন তিনি।

     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন