• ক্রিকেট, অন্যান্য
  • " />

     

    ভারতের উইমেনস টি-টোয়েন্টি চ্যালেঞ্জে দ্বিতীয়বার যাচ্ছেন জাহানারা, প্রথমবার সালমা

    দ্বিতীয়বারের মতো উইমেনস টি-টোয়েন্টি চ্যালেঞ্জে খেলতে যাচ্ছেন বাংলাদেশ পেসার জাহানারা আলম। এবার তার সঙ্গী হচ্ছেন বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক সালমা খাতুন। প্যাভিলিয়নকে এ টুর্নামেন্টে খেলার কথা নিশ্চিত করেছেন জাহানারা, আর দ্য ডেইলি স্টারকে নিজের অনুভূতির কথা জানিয়েছেন সালমা। 

    গত আসরে মিথালি রাজের অধিনায়কত্বে ভেলোসিটির হয়ে খেলেছিলেন জাহানারা। ফাইনালে ২ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি, যে ম্যাচে শেষ বলে গিয়ে হারমানপ্রিত কৌরের ভেলোসিটির কাছে হেরেছিলেন তারা। 

    এ টুর্নামেন্টে খেললে বেশ দীর্ঘদিনের অপেক্ষা ফুরোবে জাহানারা-সালমাদের। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে শেষ বাংলাদেশের হয়ে খেলেছিলেন তারা। কোভিড-১৯ মহামারিতে স্থগিত হয়ে গেছে বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব, যেটিতে খেলার কথা ছিল বাংলাদেশের। পরে স্থগিত হয়েছে বিশ্বকাপও। 
     


    ২০১৯ উইমেনস টি-টোয়েন্টি চ্যালেঞ্জের ফাইনালে উইকেট উদযাপন করছেন জাহানারা, ভেলোসিটির হয়ে খেলেছিলেন তিনি/আইপিএল


    ভবিষ্যতে আইপিএলের আদলে মেয়েদের জন্য আলাদা টুর্নামেন্ট চালুর লক্ষ্যে ২০১৮ সাল থেকে টি-টোয়েন্টি চ্যালেঞ্জ আয়োজন করছে বিসিসিআই। প্রথমবার দুটি দলের একটি ম্যাচ হওয়ার পর গতবার তিনটি দল ফাইনালসহ খেলেছিল ৪টি ম্যাচ। 

    বিসিসিআই এবারের আসর নিয়ে এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু না জানালেও ক্রিকইনফো বলছে, গতবারের মতোই তিনটি দল খেলবে চারটি ম্যাচ। নভেম্বরের ৪-৯ তারিখের মাঝে আরব আমিরাতে হবে এ টুর্নামেন্ট। 

    অক্টোবরের তৃতীয় সপ্তাহে ক্রিকেটাররা আরব আমিরাতে যাবেন, আইপিএলের আদলেই সব ক্রিকেটারকে হোটেলে রাখা হবে ‘বায়ো-সিকিউর’ বলয়ের মাঝে, যেখানে কোয়ারেন্টাইন শেষ করবেন তারা। 

    অবশ্য এ টুর্নামেন্টের সূচির সঙ্গে সাংঘর্ষিক হচ্ছে এবার উইমেনস বিগব্যাশ। অক্টোবরের ২৫ তারিখ থেকে শুরু হবে সেটি। ফলে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের শীর্ষস্থানীয় ক্রিকেটারদের অনেকেই থাকবেন না টি-টোয়েন্টি চ্যালেঞ্জে। 

    ক্রিকইনফো বলছে, ক্যাথরিন ব্রান্ট ও ন্যাট সিভারসহ অন্তত ৬ জন ইংল্যান্ড ক্রিকেটার যাচ্ছেন বিগব্যাশে, অন্যদিকে টি-টোয়েন্টির এক নম্বর বোলার সোফি একলস্টোন ও ড্যানি ওয়েইট যেতে পারেন টি-টোয়েন্টি চ্যালেঞ্জ খেলতে। 
     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন