• ক্রিকেট, অন্যান্য
  • " />

     

    ১৫ বছর পর আবারও পাকিস্তান সফরে যেতে পারে ইংল্যান্ড

    ২০০৫ সালে শেষ সফর করে আসার পর আবারও পাকিস্তান যাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে ইংল্যান্ডের। পিসিবির কাছ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে আমন্ত্রণ পেয়েছে ইংল্যান্ড। সামনের বছর শুরুতে শ্রীলঙ্কা ও ভারত সফরের মাঝে পাকিস্তান যেতে পারে তারা, সপ্তাহখানেকের জন্য তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলতে। 

    ২০০৫-০৬ মৌসুমে পূর্ণাঙ্গ সফরে পাকিস্তান গিয়েছিল ইংল্যান্ড। এরপর থেকে পাকিস্তানের সঙ্গে দেশের বাইরে তারা খেলেছে সংযুক্ত আরব আমিরাতে। 

    এখন পর্যন্ত এফটিপিতে ২০২২ সালের শেষ পর্যন্ত পাকিস্তান যাওয়ার কোনো কথা নেই ইংল্যান্ডের। তবে কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে বায়ো-সিকিউর বলয়ের মাঝে ইংল্যান্ড সফরে যাওয়ার পর থেকেই কথা উঠেছে ফিরতি সফর নিয়ে। ইংল্যান্ড যেতে পারে এই পরিস্থিতিতে তাদের ওখানে যাওয়া আরেক দল ওয়েস্ট ইন্ডিজেও। 

    “পিসিবির সঙ্গে আলোচনার পর আমরা নিশ্চিত করছি, ২০২১ সালের শুরুর দিকে সাদা বলের সংক্ষিপ্ত সফরের জন্য ইংল্যান্ড মেনস দল আমন্ত্রণ পেয়েছে। আমরা পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফেরার ব্যাপারটিকে স্বাগত জানাই, এবং তাদের আরও সামনে এগুনোর জন্য সহায়তা করতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ”, বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে ইসিবি। 

    তবে এখনই কিছু নিশ্চিত করেনি তারা, ইসিবির বিবৃতি অনুযায়ী, ‘সবার আগে ক্রিকেটার ও স্টাফদের নিরাপত্তা ও কল্যাণ সবার আগে। কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে বায়ো-সিকিউর বলয়, দলকে ঘিরে নিরাপত্তা এবং ইংল্যান্ডের ব্যস্ত সূচির মাঝে এই সফরের বাস্তবতাও খতিয়ে দেখতে হবে তাদের, এমন বলেছে ইসিবি। 

    কোভিড-১৯ মহামারির মাঝে শ্রীলঙ্কা সফর স্থগিত রেখে ফিরে গিয়েছিল ইংল্যান্ড, সামনের শীতে হতে পারে সেটি। তবে ভারতের কোভিড-১৯ পরিস্থিতির কারণে আরব আমিরাতে তাদের সঙ্গে খেলতে পারে ইংল্যান্ড, যেখানে হচ্ছে এ মৌসুমের আইপিএল। তবে কোভিড-১৯ পরিস্থিতি এবং রাজনৈতিক অবস্থার কারণে ভারত-পাকিস্তানে সরাসরি ভ্রমণের ক্ষেত্রেও ঝামেলা হতে পারে ইংল্যান্ডের। 

    কোভিড-১৯ এর পর পাকিস্তানের অবশ্য ফিরেছে ঘরোয়া ক্রিকেট, এখন সেখানে হচ্ছে ন্যাশনাল টি-টোয়েন্টি কাপ। সামনে জিম্বাবুয়ে যাবে সেখানে। 
     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন