• প্রীতি ম্যাচ
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    ১৩ ও ১৭ নভেম্বর নেপালের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ, ৩৬ সদস্যের দল ঘোষণা জেমি ডের

    নভেম্বরে নেপালের বিপক্ষে দুইটি প্রীতি ম্যাচের দিন-তারিখ নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন। একই সঙ্গে ওই দুই ম্যাচের জন্য ৩৬ জনের স্কোয়াডও ঘোষণা করেছেন বাংলাদেশ কোচ জেমি ডে। ২৩ অক্টোবর জাতীয় দলে ডাক পাওয়া খেলোয়াড়রা যোগ দেবেন ক্যাম্পে। তবে বাংলাদেশ দল কোথায় অনুশীলন করবে সে ব্যাপারটি এখনও নিশ্চিত হয়নি।

    দশ মাস বিরতির পর নিজেদের প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচে ১৩ নভেম্বর নেপালের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ম্যাচটি হবে ১৭ তারিখ। দুই ম্যাচের জন্যি ভেন্যু হিসেবে নির্ধারণ করা হয়েছে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামকে। ম্যাচের সময় এখনও নির্ধারণ করা হয়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে সন্ধ্যা ৬টা বা ৭টা নাগাদ শুরু হবে ম্যাচগুলো।

    ফিফা উন্ডোতে ম্যাচ আয়োজন হওয়ায় এই দুইটি ম্যাচ জিতলে ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বাংলাদেশের। সেপ্টেম্বরে প্রকাশিত সবশেষ ফিফা র‍্যাঙ্কিং অনুযায়ী নেপালের অবস্থান ১৭০, আর বাংলাদেশ রয়েছে ১৮৭ তে। ২০১৮ সালে দুই দল সবশেষ মুখোমুখি হয়েছিল সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে। সে ম্যাচে নেপালের কাছে ২-০ গোলে হেরে সাফের গ্রুপ পর্ব থেকেই আরও একবার বিদায় নিয়েছিল স্বাগতিক বাংলাদেশ।
     


    নেপালের বিপক্ষে দুইটি ম্যাচের জন্য বাংলাদেশ কোচ জেমি ডে অবশ্য পুরোনো স্কোয়াডটাই নির্ধারণ করেছেন। জুলাইয়ে বিশ্বকাপ ও এশিয়া কাপ বাছাইয়ের ম্যাচ সামনে রেখে ৩৬ সদস্যের এই দলটাই ঘোষণা করেছিলেন বাংলাদেশ কোচ। এরপর করোনাভাইরাসের কারণে ফ্লাইট জটিলতার কারণ দেখিয়ে এএফসি দ্বিতীয় দফায় খেলা স্থগিত করলে আর মাঠে নামার সুযোগ হয়নি বাংলাদেশের।   

    নেপালের সঙ্গে বাংলাদেশের সরাসরি ফ্লাইটব্যবস্থা এখনও চালু হয়নি। বাফুফে জানিয়েছে নেপাল বাংলাদেশে আসবে চার্টার্ড বিমানযোগে। এরপর ১৭ তারিখ ম্যাচশেষে ওই বিমানেই ফিরে যাবে তারা।

    বাংলাদেশ স্কোয়াড

    গোলরক্ষক

    আশরাফুল ইসলাম রানা (শেখ রাসেল), শহীদুল আলম সোহেল (আবাহনী), আনিসুর রহমান (বসুন্ধরা কিংস), পাপ্পু হোসেন (সাইফ স্পোর্টিং)
    ডিফেন্ডার
    তপু বর্মন (বসুন্ধরা কিংস), টুটুল হোসেন বাদশা (আবাহনী), বিশ্বনাথ ঘোষ (বসুন্ধরা কিংস), ইয়াসিন খান (বসুন্ধরা কিংস), রহমত মিয়া (সাইফ স্পোর্টিং), রিয়াদুল হাসান (সাইফ স্পোর্টিং), রায়হান হাসান (আবাহনী), সুশান্ত ত্রিপুরা (বসুন্ধরা কিংস), কাজী তারিক (বসুন্ধরা কিংস), ইয়াসিন আরাফাত (সাইফ স্পোর্টিং)

    মিডফিল্ড
    সোহেল রানা (আবাহনী), জামাল ভূঁইয়া (সাইফ স্পোর্টিং), মামুনুল ইসলাম (আবাহনী), মোহাম্মদ ইব্রাহিম (বসুন্ধরা কিংস), সাদ উদ্দিন (আবাহনী), মানিক হোসেন মোল্লা (চট্টগ্রাম আবাহনী), রবিউল হাসান (বসুন্ধরা কিংস), আতিকুর রহমান ফাহাদ (বসুন্ধরা কিংস), বিপলু আহমেদ (বসুন্ধরা কিংস), নাজমুল রাসেল (বাংলাদেশ পুলিশ), মনজুর হোসেন মানিক (চট্টগ্রাম আবাহনী), মাসুক মিয়া জনি (বসুন্ধরা কিংস)

    ফরোয়ার্ড
    নাবিব নেওয়াজ জীবন (আবাহনী), মাহবুবুর রহমান সুফিল (বসুন্ধরা কিংস),  রকিব হোসেন (চট্টগ্রাম আবাহনী), আরিফুর রহমান (সাইফ স্পোর্টিং), মতিন মিয়া (বসুন্ধরা কিংস), মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ (শেখ রাসেল) তৈহিদুল আলম সবুজ (বসুন্ধরা কিংস), এমএস বাবলু (বাংলাদেশ পুলিশ এফসি), সুমন রেজা (উত্তরা বারিধারা), ফয়সাল আহমেদ ফাহিম (সাইফ স্পোর্টিং)

     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন