• লা লিগা
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    পেনাল্টির হ্যাটট্রিকে রিয়ালেরই দুই গ্রেটকে মনে করিয়ে দিলেন সোলার

    ইউরোপিয়ান লিগে পেনাল্টির রাত ছিল কাল। পেনাল্টি মিস করেছেন কেভিন ডি ব্রুইন, পরে সেটার মূল্য দিতে হয়েছে লিভারপুলের সঙ্গে ড্র করে। ইব্রাহিমোভিচও মিস করেছিলেন, যদিও পরে গোল করে সেটা পুষিয়ে দিয়েছেন কিছুটা। তবে কার্লোস সোলার যা করেছেন, সেটা ছাড়িয়ে গেছে সবকিছু। ভ্যালেন্সিয়ার এই ফুটবলার শুরুতে পেনাল্টি মিস করেছিলেন ঠিকই, পরে করেছেন তিন তিনটি গোল। এবং অবিশ্বাস্যই শোনাবে, সবগুলোই পেনাল্টি থেকে। মজার ব্যাপার, এই তিনটি পেনাল্টি উপহার দিয়েছেন রিয়ালের আলাদা তিন জন- রামোস, ভাজকেজ, মার্সেলো। আর অন্য যে ডিফেন্ডার পেনাল্টি দেননি, সেই ভারান করেছেন আত্মঘাতী গোল। তবে বিরল এই পেনাল্টির হ্যাটট্রিকেই সোলার মনে করিয়ে দিয়েছেন দুই কিংবদন্তি। 

     

    এক ম্যাচে তিনটি পেনাল্টি থেকে গোল করার কীর্তি লা লিগায় এর আগেও ছিল। কাকতালীয়ভাবে প্রথম জন রিয়ালেরই কিংবদন্তি। আলফ্রেডো ডি স্টেফানো ১৯৫৮ সালে সেল্টা ভিগোর বিপক্ষে পেনাল্টি থেকে হ্যাটট্রিক করেছিলেন। আর সর্বশেষ ১৯৯৬ সালে ওভিয়েদোর বিপক্ষে অ্যালান পিটারনাক ভায়াদোলিদের হয়ে করেছিলেন হ্যাটট্রিকের। একুশ শতকে এই কীর্তি নেই লা লিগায় আর কারও। 

    ইংলিশ লিগ শুরুর পরও এরকম কীর্তি কারও নেই। তবে ইংল্যান্ডের প্রথম বিভাগে তিন বছর আগে গিলিংহামের হয়ে এই কীর্তি ছিল জশ রাইটের। তারটা ছিল আরও অভিনব, দুই গোলে পিছিয়ে পড়ার পর নয় মিনিটের মধ্যে পেনাল্টি থেকে করেছিলেন তিনটি গোল। ইংলিশ লিগের শীর্ষ পর্যায়ে এমন কীর্তি আর একটিই খুঁজে পাওয়া গেছে। ১৯৫৭ সালে কেন বার্নস ম্যান সিটির হয়ে এভারটনের বিপক্ষে করেছিলেন হ্যাটট্রিক। তবে ইংলিশ লিগে সেট পিস থেকে হ্যাটট্রিক করার কীর্তি আছে দুজনের। ম্যাট লে টিসিয়ের আর ওয়েইন রুনি হ্যাটট্রিক করেছিলেন শুধু ফ্রি কিক আর পেনাল্টি থেকে। 

    আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এই কীর্তি যাদের আছে, তাদের মধ্যে সবচেয়ে বড় নাম সম্ভবত রোনালদো। ব্রাজিলের এই কিংবদন্তি সেটি করেছিলেন আবার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় ম্যাচগুলোর একটিতে, চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আর্জেন্টিনার বিপক্ষে।  সেই ম্যাচে তিনটি গোলই রোনালদো করেছিলেন স্পটকিক থেকে, মিনেইরোর ম্যাচটা ৩-১ গোলে জিতেছিল ব্রাজিল।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন