• ক্রিকেট, অন্যান্য
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    আইসিসির নতুন চেয়ারম্যান নিউজিল্যান্ডের গ্রেগ বার্কলে

    আইসিসির নতুন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন নিউজিল্যান্ডের গ্রেগ বার্কলে। শশাঙ্ক মনোহর পদত্যাগ করার পর থেকে ভারপ্রাপ্ত দায়িত্ব পালন করছিলেন ইমরান খাওয়াজা। আসিসিসি স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদ তৈরি করার পর থেকে বার্কলে হবেন দায়িত্বপ্রাপ্ত দ্বিতীয় ব্যক্তি। 

    এমনিতে পেশায় বাণিজ্যিক আইনজীবী বার্কলে, মূলত অকল্যান্ড-ভিত্তিক কাজ তার। ২০১২ সাল থেকে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের ডিরেক্টর তিনি, এখন এনজেডসির চেয়ারম্যানও। একইসঙ্গে ইন্টারন্যাশনাল রাগবি লিগ (আইআরএল)-এরও চেয়ারম্যান তিনি। তবে আইসিসির দায়িত্ব পাওয়ার পর এখন এনজেডসি ও আইআরএল-- দুটিরই প্রধানের দায়িত্ব ছেড়ে দেবেন তিনি। 

    ২০১৫ সালে আইসিসি মেনস ক্রিকেট বিশ্বকাপের ডিরেক্টর ছিলেন বার্কলে, এর আগে নর্দার্ন ডিস্ট্রিক্টস ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সদস্য ও চেয়ারম্যান। সঙ্গে নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া ভিত্তিক কয়েকটি কোম্পানির ডিরেক্টরের পদেও আছেন তিনি। 

    প্রথম রাউন্ডের ভোটে এগিয়ে থাকার পর বার্কলে জিতেছেন দ্বিতীয় রাউন্ডেও। ১৬ সদস্যের বোর্ডে দুই তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে অন্তত ১১টি ভোট প্রয়োজন চেয়ারম্যান পদে, সর্বশেষ ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকার সমর্থন পেয়েছেন তিনি। 

    বার্কলের চেয়ারম্যান পদে আসায় আইসিসির ক্ষেত্রে যে পরিবর্তন আসবে, সেটি মূলত দ্বিপক্ষীয় সিরিজভিত্তিক। বার্কলের বিপরীতে যিনি ছিলেন, সেই খাওয়াজার সমর্থন দেওয়া সদস্যরা আইসিসি এফটিপির পরবর্তী সাইকেলে বৈশ্বিক ইভেন্ট বেশি আয়োজনের পক্ষে ছিলেন। নতুন একটি ওয়ানডে টুর্নামেন্ট, যেখানে ছয় দলের খেলার সম্ভাবনা ছিল-- আয়োজন করা হতে পারতো। তবে বার্কলে দায়িত্ব পাওয়ার পর বলেছেন, দ্বিপক্ষীয় সিরিজের ওপরই জোর দেবেন তি নি। 

    “ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের চেয়ার নির্বাচিত হওয়া সম্মানের। আমি আমার সহকর্মী অন্য আইসিসি ডিরেক্টরদের ধন্যবাদ জানাই আমাকে সমর্থন দেওয়ার জন্য। আশা করি আমরা একত্রে এসে আমাদের খেলার নেতৃত্ব দিতে পারবো এবং বৈশ্বিক মহামারি থেকে একটা শক্ত অবস্থানের দিকে যেতে পারবো, সম্প্রসারণে এগিয়ে যাব”, আইসিসির দেওয়া এক বিবৃতিতে বলেছেন তিনি। 

    “আমাদের সদস্যদের সঙ্গে আমাদের খেলার মূল যে বাজার সেটি শক্ত করার কাজ করতে মুখিয়ে আছি। যাতে করে বিশ্বের আরও মানুষ ক্রিকেট উপভোগ করতে পারে। এই খেলার একজন দায়িত্বপ্রাপ্ত হিসেবে আমার দায়িত্বকে আমি সিরিয়াসলি নেব, এবং ১০৪ আইসিসি সদস্যের হয়ে কাজ করে যাব এই খেলার একটা টেকসই ভবিষ্যত গঠনে।” 

    “আমি ইমরান খাওয়াজাকে এই কঠিন সময়ে আইসিসির দায়িত্ব পালনের জন্য ধন্যবাদ জানাই। তার সঙ্গে ভবিষ্যতে কাজ করে যাব আমি।” 


     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন