• সিরি আ
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    রোনালদো কি আসলেই যৌথভাবে সর্বকালের সেরা গোলদাতা?


     

    পরশু সাসসুওলোর সঙ্গে জোড়া গোল করার পর বেশ কিছু সংবাদমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হলো, জোসেফ বিকানের সঙ্গে যৌথভাবে রোনালদো সর্বকালের সেরা গোলদাতা। কিন্তু রোনালদো কি আসলেই বিকানের রেকর্ড ছুঁয়েছেন? সর্বকালের সেরা গোলদাতা আসলে কে? ব্যাপারটা তলিয়ে দেখা যাক।

    ফুটবলের গোলের বিস্তারিত পরিসংখ্যান রাখা শুরু হয়েছে খুব বেশিদিন হয়নি। বিশেষ করে ইউরোপের বাইরে এখনো অনেক ম্যাচের আনুষ্ঠানিক হিসেব পাওয়া যায় না। রোনালদোর ক্ষেত্রে সেই সমস্যা নেই। তার আনূষ্ঠানিক গোল ৭৫৯, কোন ক্লাব বা দেশের হয়ে কতটি, তার একদম নিখুঁত রেকর্ড আছে -স্পোর্টিং লিসবনের হয়ে ৫টি, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে ১১৮টি, রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে ৪৫০টি, জুভেন্টাসের হয়ে ৮৪টি ও পর্তুগালের হয়ে ১০২টি। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে রোনালদোর পূর্বসুরিদের নিয়ে।

    যার রেকর্ড ছুঁয়েছেন বলে ধরা হচ্ছে, সেই জোসেফ বিকান আসলে কে? এই ফুটবলার ছিলেন চেক প্রজাতন্ত্রের, ত্রিশ থেকে ষাটের দশকের আগ পর্যন্ত খেলেছেন অস্ট্রিয়া ও চেক প্রজাতন্ত্রে- মূলত র‍্যাভিড ভিয়েনা ও স্লাভিয়া প্রাগের মতো ক্লাবে। সব মিলে ৮০৫টি ক্যারিয়ার গোল আছে বলে তার মনে করা হয়, সেটাও আবারে ৫৩০টি ম্যাচে।

    তবে এখানেও আছে গোলমাল। বিকানের এই গোলগুলোর মধ্যে ২৭টি করেছেন র‍্যাপিডের রিজার্ভ ও অ্যামেচার দলের হয়ে। জাতীয় দলের হয়ে আরও কিছু গোল করেছেন যেগুলো অফিসিয়াল হিসাবে নেই। ফুটবলের রেকর্ড রাখে যে সংস্থা, সেই আরএসএসএফ বলছে বিকানের অফিসিয়াল ক্যারিয়ার গোল তাই ৭৫৯টি। যদিও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় অস্ট্রিয়ার দ্বিতীয় বিভাগে কিছু গোল করেছেন, যেগুলোর কোনো হিসেব পাওয়া যায়নি। এই হিসেবে রোনালদো বিকানকে ছুঁয়ে ফেলেছেন, ছাড়িয়েও যাবেন শিগগিরই।

    কিন্তু ফ্যাকড়া আরও আছে। কদিন আগে মেসির বার্সার হয়ে ৬৪৩ গোলের পর পেলের বিতর্কটা এসেছে নতুন করে। বলা হচ্ছিল, এক ক্লাবের হয়ে সবচেয়ে বেশি ক্যারিয়ার গোল এখন মেসির। কিন্তু সান্তোস থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, সেই রেকর্ড পেলের। পেলে নিজেও তার ইন্সটাগ্রাম বায়োতে লিখেছেন, ‘লিডিং গোলস্কোরার অব অল টাইম (১২৮৩)।’ যদিও সান্তোসের হিসেবে পেলের গোল ১০৯১টি।


    কিন্তু এখানেও পেলের অনেক গোল আছে যেগুলো আনঅফিসিয়াল বা ফ্রেন্ডলি ম্যাচে। আবার মিলিটারি দলের হয়েও একটা গোল আছে। এসব বাদ দিলে পেলের রেকর্ড দাঁড়ায় ৭৫৭টি, সেটা সান্তোস, নিউ ইয়র্ক কসমস আর ব্রাজিলের হয়ে। ওদিকে রোমারিওর দাবি, তার গোলও হাজার পেরিয়ে গেছে। ২০০৭ সালে সেই ১০০০ গোলের মাইলফলক উদযাপনও করেছিলেন তিনি। কিন্তু এর মধ্যে যুব দল, প্রীতি ম্যাচ আর আনঅফিসিয়াল ম্যাচও আছে- সেগুলো বাদ দিলে রোমারিওর গোল ৭৪৫টি। কিন্তু সেটাও পুরোপুরি নিশ্চিত নয়। ওদিকে মেসিও পিছিয়ে নেই বেশি, তার ৭১৯ গোল নিয়ে অবশ্য কোনো বিতর্ক নেই। রোনালদো-মেসির ক্যারিয়ার শেষে দুজনের একজনই হবেন ‘অফিসিয়ালি’ সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা।

    তাহলে কি রোনালদোকে আনুষ্ঠানিকভাবে যৌথভাবে সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা বলা যায়? পেলে আর রোমারিও নিশ্চিতভাবেই তা মানবেন না, মানতে হয়তো চাইবেন না ২০০১ সালে চলে যাওয়া বিকানের পরিবারও। তাই হয়তো শব্দটা এখানে থেকেই যাচ্ছে।

     

    (বিবিসি থেকে অনূদিত)

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন