• লা লিগা
  • " />

     

    কিক অফের আগে: রিয়াল-বার্সার 'মর্টাল কমব্যাট' ও মেসির শেষ ক্লাসিকো?

    কিক অফের আগে: রিয়াল-বার্সার 'মর্টাল কমব্যাট' ও মেসির শেষ ক্লাসিকো?    

    এল ক্লাসিকো 

    রিয়াল মাদ্রিদ-বার্সেলোনা 

    এস্তাদিও আলফ্রেড ডি স্টেফানো, ১১ এপ্রিল, রাত ১টা


    এল ক্লাসিকো মানেই এখন তুমুল শোরগোল, চায়ের কাপে ঝড়। সেটা গত যুগেরও বেশি সময় ধরে, বিশেষ করে তুঙ্গে উঠেছিল মেসি-রোনালদোর দ্বৈরথের সময় থেকে। রোনালদো রিয়াল ছেড়ে চলে যাওয়ায় সেই আঁচ খানিকটা কমেছে। তবে মেসি এখনও আছেন। কিন্তু তিনি চলে গেলেও ক্লাসিকর উত্তাপ কতটা কমে যাবে? বলা কঠিন, তবে কিছুটা কমবে নিশ্চিতভাবেই। কথাগুলো উঠছে, কারণ হয়তো এটাই হতে পারে মেসির শেষ ক্লাসিকো। আর মঞ্চটা আজকের জন্য এর চেয়ে ভালোভাবে সাজানো থাকতে পারত না। 

    এই মুহূর্তে পয়েন্ট টেবিলের যে অবস্থা, আজকের ম্যাচটা আসলে দু দলের কাছে মর্টাল কমব্যাটের মতোই। হয় মারো, নয়তো মরো। অথচ মাস তিনেক আগেও এই ম্যাচটা অনেকে মোটামুটু আনুষ্ঠানিকতারই মনে করতেন। অ্যাটলেটিকো তখন পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে থেকে অনেকটা এগিয়ে ছিল, রিয়াল-বার্সা ছিল অনেকটা পিছিয়ে। কিন্তু অ্যাটলেটিকো এরপর পা হড়কেছে বার বার, আর রিয়াল-বার্সা তরতর করে এগিয়েছে। এখন ব্যাপারটা এমন, ৯ ম্যাচ বাকি থাকতে শীর্ষে থাকা তিন দলের মধ্যে মাত্র তিন পয়েন্টের ব্যবধান। ২৯ ম্যাচে সবার ওপরে থাকা অ্যাটলেটিকোর পয়েন্ট ৬৬, এরপর বার্সেলোনার পয়েন্ট ৬৫ ও রিয়াল মাদ্রিদের ৬৩। আজ হেরে যাওয়া মানে শিরোপা লড়াই থেকে অনেকটা পিছিয়ে পড়া। অন্য দুই দল  তখন এগিয়ে যাবে অনেকটা। 

    তবে  আজ হেরে গেলেই যে সব শেষ সেটা জিদান মানেননি। এরপরও সুযোগ দেখছেন নিজেদের। কথাটা অবশ্য জিদান চাপ কমাতেও বলে থাকতে পারেন। তবে আজ দুই দলের যে ফর্ম, তাতে কাউকে এগিয়ে রাখা কঠিন। 

    বার্সার কথাই ধরুন। কোমানের অধীনে ৩২ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বাজে শুরু করেছিল তারা। এরপর ডিসেম্বরে কাদিজের কাছে হেরে প্রায় মিলিয়ে যেতে বসেছিল শিরোপা সম্ভাবনা। সেখান থেকে তারা ১৯ ম্যাচ অপরাজিত, এর মধ্যে জিতেছে ১৬টিতেই। চ্যাম্পিয়বস লিগ থেকে বাদ পড়া বাদ দিলে বার্সার ফর্মটা দুর্দান্তই। তরুণ পেদ্রি, আরাউহো, মিনহগুয়েজারা আশা দেখাচ্ছেন, আলবা-বুস্কেটসরা যেন নবজীবন ফিরে পেয়েছেন হারিয়ে যেতে যেতে। তার চেয়েও বড় কথা, মেসিকেও মনে হচ্ছে আগের চেয়ে বেশি মোটিভেটেড। কোমান তার দলটা পেয়ে গেছেন। বার্সার খেলাতেই সেই প্রমাণ দেখা যাচ্ছে, অনেক দিনের মধ্যে বার্সা খেলছে নিজেদের সেরা খেলাটা। 

    জিদানের কাজটাও কঠিন বই সহজ ছিল না। এই ডিসেম্বরের আগেই তার শেষ দেখে ফেলেছিল মাদ্রিদ মিডিয়া। রিয়াল ছিল লা লিগার সঙ্গে চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপ পর্ব থেকেও ছিটকে পড়ার আশংকায়। একে একে সেভিয়া, মনশেনগ্লাডবাখ, অ্যাটলেটিকোকে হারিয়ে সেই সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়েছে রিয়াল। চ্যাম্পিয়নস লিগে এখন হাতছানি দিচ্ছে সেমি, লা লিগার শিরোপা লড়াইয়েও ফিরেছে। চোটজর্জর এক দল নিয়ে রিয়াল এখনো আছে ভালোমতোই। এই মৌসুমেই আগের ক্লাসিকোতে বার্সাকে হারিয়েছে রিয়াল, ২০০৮ এরপর প্রথমবার লিগে ক্লাসিকো-ডাবলের হাতছানি তাদের সামনে। ক্লাসিকোর ফর্মও তাদের পক্ষে, জিতেছে আগের দুইটিই। 

    মেসির জন্যও আজকের মঞ্চটা অন্যরকম। রোনালদো যাওয়ার পর ক্লাসিকোতে গোল-অ্যাসিস্ট পাননি, আজকের ম্যাচের আগে সেটা নিশ্চিয়ই মাথায় থাকবে তার। তার চেয়েও বড় কথা, আজ হতে পারে তার শেষ ক্লাসিকো। এই মৌসুমেই শেষ হয়ে যাচ্ছে ক্লাবের সঙ্গে চুক্তি। মেসির জন্য মঞ্চটা তাই শেষ বারের মতো নিজেকে চেনানর। ক্লাসিকোতে অনেক স্মরণীয় মুহূর্ত আছে তার, আজ কি পারবেন? 

    দলের খবর 

    রিয়ালের জন্য বড় দুশ্চিন্তা চোটের জন্য এই ম্যাচে রামোস, ভারানকে হারিয়ে ফেলা। রক্ষণে তাই আস্থা নাচো, মিলিতাওরা। চোটের জন্য হ্যাজার্ড আজও থাকছেন না। বার্সায় নতুন করে চোট সমস্যা নেই, আগের মতোই কুতিনিয়ো-ফাতিরা নেই। 

    সম্ভাব্য একাদশ 

    বার্সেলোনা

    টের স্টেগেন, আরাউহো, লেংলে, দেস, আলবা, ডি ইয়ং, বুস্কেটস, মেসি, পেদ্রি, দেম্বেলে, গ্রিজমান

    রিয়াল মাদ্রিদ

    কোর্তোয়া, মিলতাও, নাচো, ভাজকেজ, মেন্ডি, কাসেমিরো, ক্রুস, মদ্রিচ, আসেন্সিও, ভিনিসিয়া্‌স, বেনজেমা

    প্রেডিকশন 

    ১-১

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন