• লা লিগা
  • " />

     

    মেসির জোড়া গোলে ভ্যালেন্সিয়াকে হারিয়ে আশা বাঁচিয়ে রাখল বার্সা

    মেসির জোড়া গোলে ভ্যালেন্সিয়াকে হারিয়ে আশা বাঁচিয়ে রাখল বার্সা    

    গ্রানাডার সাথে হার বার্সাকে ঠেলে দিয়েছিল খাদের কিনারায়। এরপর ভুল করার কোনো সুযোগই ছিল না। অ্যাটলেটিকো আর রিয়াল এই সপ্তাহে জেতায় বার্সার সামনে জয় ছাড়া বিকল্পও ছিল না। ভ্যালেন্সিয়ার সাথে পিছিয়ে পড়েও শেষ পর্যন্ত ৩-২ গোলের জয়ে শিরোপার আশাটা বাঁচিয়ে রাখল। সেই সঙ্গে সামনের শনিবার অ্যাটলেটিকোর ম্যাচের আগে আত্মবিশ্বাসও সঞ্চয় করে নিল।

    ম্যাচে অনুমিতভাবে বার্সার কাছেই সুযোগ এসেছিল বেশি। প্রথম ৪৫ মিনিটে অবশ্য কোনো গোল হয়নি। কিন্তু ৫০ মিনিটে সাবেক আর্সেনাল ডিফেন্ডার গ্যাব্রিয়েল পলিস্তার গোলে এগিয়ে যায় ভ্যালেন্সিয়া। এই মৌসুমে পঞ্চম গোল পেলেন এই ডিফেন্ডার। এরপরেই ৫৬ মিনিটে পেনাল্টি পেয়ে যায় বার্সা। লিওনেল মেসির কিকটা সাবেক বার্সা কিপার সিলেসেন ডান দিকে ঝাঁপিয়ে পড়ে ঠেকিয়ে দিয়েছেন। কিন্তু ফিরতি বল থেকে মেসিই গোল করে সমতা ফিরিয়েছেন বার্সার হয়ে। এরপর আর বার্সাকে পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। 

    ৬৩ মিনিটে জর্দি আলবার ক্রস থেকে ফ্রাংকি ডি ইয়ংয়ের হেড ফিরিয়ে দিয়েছিলেন সিলসেন। কিন্তু সেটা এসে পরে গ্রিজমানের কাছে। বল জালে পাঠিয়ে এক পাক নেচে উদযাপন করে নিয়েছেন ফর্মে থাকা এই ফরোয়ার্ড। তবে দিনে বার্সার সেরা মুহূর্ত বাকি ছিল তখনো। ৬৭ মিনিটে মেসির ট্রেডমার্ক ফ্রিকিক দেয়ালের ওপর দিয়ে জড়িয়ে যায় জালে। সেই সঙ্গে এগিয়ে যায় বার্সা। এরপর শেষের দিকে সোলারের ৩০গজী দুর্দান্ত গোলে ব্যবধান কমিয়েছিল ভ্যালেন্সিয়া, কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর গোলটা পায়নি।

    এই জয়ে ৩৪ ম্যাচে বার্সার পয়েন্ট ৭৪, সমান পয়েন্ট নিয়ে হেড টু হেডে এগিয়ে দুইয়ে রিয়াল। ৭৬ পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে অ্যাটলেটিকো।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন