• লা লিগা
  • " />

     

    বার্সার অপমান ভোলেননি সুয়ারেজ, চোখের জলে কৃতজ্ঞতা জানালেন অ্যাটলেটিকোকে

    বার্সার অপমান ভোলেননি সুয়ারেজ, চোখের জলে কৃতজ্ঞতা জানালেন অ্যাটলেটিকোকে    

    লুইস সুয়ারেজ কাঁদছেন। সংবাদ সম্মেলনে কথা বলতে বলতে কাঁদছেন। ম্যাচ শেষে সেলফোনে পরিবারের সাথে কথা বলতে গিয়ে কাঁদছেন। আর এই কান্নায় ধুয়েমুছে যাচ্ছে অনেক বঞ্চনা, অনেক অপমান। বার্সেলোনা যেভাবে তাকে অবহেলা করেছিল, সেটা ভোলেননি সুয়ারেজ। অ্যাটলেটিকোকে ট্রফি এনে দেওয়ার পর তাই মনে করিয়ে দিয়েছেন সেই সময়টাকে, সেই সঙ্গে কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন অ্যাটলেটিকোর প্রতি। 

    সাত বছর আগে সুয়ারেজ যখন বার্সায় যোগ দিয়েছিলেন, সে বছরেই সর্বশেষ লা লিগার শিরোপা জিতেছিল সিমিওনের দল। এরপর সুয়ারেজ বার্সার হয়ে বেশ কবারই লিগ জিতেছেন। শুধু লিগ নয়, জিতেছেন সম্ভাব্য সবকিছু। ন্যু ক্যাম্প তার ঘরের মতোই হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু দুঃস্বপ্নের ২০১৯-২০ মৌসুমের পর সুয়ারেজকে হতে হয় বলির পাঁঠা। বেতন কম নিয়েও থেকে যেতে চেয়েছিলেন ক্লাবে। কিন্তু তাকে রাখা হয়নি। সুয়ারেজকে চলে যেতে হয়েছে অ্যাটলেটিকোতে, তার সঙ্গে চুক্তি ছিন্ন করেছে বার্সা। চোখের জলেই তখন বিদায় নিয়েছিলেন সুয়ারেজ। পরে বলেছেন, তাকে দল ছেড়ে চলে যেতে হয়েছে বলে যত না কষ্ট পেয়েছেন, তার শারীরিক গড়ন নিয়ে মন্তব্য করায় তার চেয়ে বেশি কষ্ট পেয়েছেন।



    নিয়তির কী নির্মম পরিহাস, সেই সুয়ারেজ অ্যাটলেটিকোতে গিয়ে নিজেকে ফিরে পেয়েছেন নতুন করে। পুরো মৌসুমে দারুণ খেলেছেন, একের পর এক গোল করেছেন। অ্যাটলেটিকো জয়ের পথেই ছিল, শেষের দিকে এসে একটু পথ হারিয়ে ফেলেছিল। এরপর আবার উদ্ধার করেছেন সুয়ারেজ।

    প্রথমবার ওসাসুনার সঙ্গে ম্যাচে। পিছিয়ে পড়ার পর সমতা ফেরায় সিমিওনের দল, কিন্তু শেষ সময়ে গিয়ে সুয়ারেজ ডান পায়ের শটে জয় এনে দেন দলকে। অ্যাটলেটিকো এগিয়ে থেকেই যায় শেষ ম্যাচে, সিমিওনে জানেন জয় পেলেই তারা চ্যাম্পিয়ন। শেষ ম্যাচে ভায়াদোলিদের বিপক্ষে আবার পিছিয়ে পড়ে অ্যাটলেটিকো, আবার সমতা ফেরায়। কী অদ্ভুত, এবারও জয়সূচক গোল এনে দেন সুয়ারেজ, দেখিয়ে দেন তিনি ফুরিয়ে যাননি। ২২ গোল করেছেন এই মৌসুমে। তাই ম্যাচ শেষে বলেন, 'বার্সেলোনা আমাকে গুরুত্ব দেয়নি, আমাকে খাটো করে দেখেছে। অ্যাটলেটিকো তাদের দুয়ার খুলে আমাকে সুযোগ করে দিয়েছে। আমার ওপর আস্থা রাখার জন্য এই ক্লাবের প্রতি সবসময়ই কৃতজ্ঞ থাকব।'

    সুয়ারেজ তাই দেখান, এখনো ফুটবলকে দেওয়ার অনেক কিছুই আছে তার। 

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন