• " />

     

    মুস্তাফিজের জন্য অপেক্ষা সার্থক, বলছেন রাইট

    এতোদিন যে বসে ছিলেম, কাল চেয়ে আর পথ গুণে, দেখা পেলেম ফাল্গুনে...- লুক রাইট মনে মনে নিশ্চয় এই গানটাই গুণগুণ করে গাইছেন। যে মুস্তাফিজের জন্য এতোদিন অপেক্ষা করছিলেন, অবশেষে তাঁকে পেলেন। সাসেক্সের হয়ে অভিষেকেই ২৩ রানে নিয়েছেন ৪ উইকেট। মুস্তাফিজের জন্য কেন এতোটা তৃষিত অপেক্ষা, সেটা নিশ্চয় রাইটের কাউকে বুঝিয়ে বলার দরকার হবে না!

     

    সেই আইপিএল থেকেই মুস্তাফিজের খেলার নিয়মিত দর্শক রাইট। হায়দরবাদে খেলার সময় নিয়মিত টুইট করেছেন, বোঝাই যাচ্ছিল সাসেক্সে বাংলাদেশের তরুণ পেসারকে দেখার জন্য আর তর সইছে না তাঁর। কিন্তু সেই অপেক্ষার প্রহর আর ফুরাচ্ছিল না, চোটের জন্য মুস্তাফিজের ইংল্যান্ড যাওয়াও বার বার পিছিয়ে যাচ্ছিল। অবশেষে সেই অপেক্ষা শেষের পর রাইটের কন্ঠে স্বস্তি, "ওকে এখানে আনতে কম কষ্ট হয়নি, অনেক খাটনি গেছে আমাদের। কেন তার জন্য এত সময় ও শ্রম দেওয়া হয়েছে সেটা এখন বোঝাই যায়। সে মাঠে নেমেই স্পেশাল একটা পারফরম্যান্স করেছে।"

     

     

    মুস্তাফিজকে যেভাবে দ্রুত নিজেকে খাপ খাইয়ে নিয়েছেন সেটা আরও বেশি অবাক করছে রাইটকে, "সে কী করবে এটা বুঝে ওঠা খুব মুশকিল ছিল। ওয়ার্ম আপে ও কী করবে সেটা আমরা বুঝে ওঠার চেষ্টা করছিলাম। এজন্য উইকেটকিপার ক্রেইগ চাচোপাকে কৃতিত্ব দিতেই হবে। ওর সঙ্গে না খেলেই এভাবে তার বল ধরতে পারাটা কম কথা নয়। আর ফিজ গতকালই মাত্র বিমান থেকে নেমেছে। আর এক দিনের মধ্যেই সে মাঠে নেমে গেছে। আসলেই ও বিশেষ একটা প্রতিভা।"

     

    মুস্তাফিজ অবশ্য একদমই বিশ্রাম পাচ্ছেন না। আজই সারের সঙ্গে আবার নামতে হবে মাঠে। নকআউট পর্বে যাওয়ার আশা এখনো বাঁচিয়ে রেখেছে সাসেক্স। রাইট এখনো আশা দেখছেন, "কালকের ম্যাচটা আমাদের জন্য অনেক বড়। দারুণ একটা দলের সঙ্গে খেলতে হবে আমাদের। আশা করি আমরা ভালো কিছু করতে পারব।"

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন