• " />

     

    কক্সবাজারে বৃষ্টিতে ভেসে গেল রোমাঞ্চ

    আয়ারল্যান্ড এ ৪৯.১ ওভারে ২২৯ (টেরি ৬৫;  আবুল ২/৪০, তানভীর ২/৪০, আবু হায়দার ২/৪০, শুভাশীষ ২/৪৮)

    বাংলাদেশ এ ১৪ ওভারে ৭৫/৩ (জাকির ৩৫; ব্যারি ২/২৩)

    ফলঃ ম্যাচ পরিত্যক্ত


    চার দিনের ম্যাচটা হয়েছে দারুণ জমজমাট। বাংলাদেশ এ দলকে জেতাতে হয়েছে অনেক ঘাম ঝরিয়েই। কক্সবাজারে প্রথম এক দিনের ম্যাচেও অপেক্ষা করছিল রোমাঞ্চ। ৩৬ ওভারে ১৫৪ রান দরকার ছিল বাংলাদেশের, হাতে ছিল সাত উইকেট। কিন্তু বৃষ্টি এসে ভাসিয়ে দিয়ে গেল সব উত্তেজনা।

    টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই বিপদে পড়ে আয়ারল্যান্ড এ। তৃতীয় ওভারে জ্যাক ট্রেক্টরকে আউট করে বাংলাদেশকে প্রথম আনন্দের উপলক্ষ এনে দেন শুভাশীষ। পরেই ওভারেই আবু হায়দার রনির জোড়া আঘাত, ফিরিয়ে দিয়েছেন শ্যানন ও অ্যান্ডারসনকে। পঞ্চম ওভারে শুভাশীষ সিমি সিংকেও ফিরিয়ে দিলে ১৪ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে বসে আয়ারল্যান্ড।

    সেখান থেকে তাদের টেনে তোলেন টেরি ও টাকার। পরের ১৫ ওভারে দুজন যোগ করেছেন ৮৩ রান। এরপর টাকারকে আউট করেছেন সানজামুল, টেরিকে ফিরিয়ে দিয়েছেন তানভীর হায়দার। এরপর গ্যাট কেলকেও তানভীর ফিরিয়ে দিলে ১৩৭ রানেই ৭ উইকেট হারিয়ে বসে আয়ারল্যান্ড এ।

    সেখান থেকে আরেক দফা প্রতিরোধ শুরু আইরিশদের। অষ্টম উইকেটে ৬৪ রান যোগ করেছেন ব্যারি ও ম্যাকব্রাইন। আবুল হাসান আউট করেছেন ব্যারিকে, পরে ম্যাকব্রাইনকে ফিরিয়ে দিয়েছেন মাহাদী। শেষ পর্যন্ত ৪৯.১ ওভারেই অলআউট হয়ে গেছে আয়ারল্যান্ড।

    বাংলাদেশ প্রথম ৫.৫ ওভারে তুলে ফেলেছিল ৩৭ রান। এরপর ১৬ রান করে আউট হয়ে যান সাদমান, এরপর নাজমুল ও নাদিফ ফিরে গেলে একটু বিপদেই পড়ে যায় বাংলাদেশ। জাকির ও তানভীর যখন ক্রিজে ছিলেন, তখনই আসে বৃষ্টি। শেষ পর্যন্ত তা আর খেলাই শুরু হতে দেয়নি।   

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন