• সিরি আ
  • " />
    X
    GO11IPL2020

     

    হিগুয়াইনের জোড়া গোলে মিলানকে হারাল জুভে

    গঞ্জালো হিগুয়াইনের জোড়া গোলে এসি মিলানকে ২-০ ব্যবধানে হারিয়েছে জুভেন্টাস। সান সিরোতে জুভেন্টাসের সাথে তেমন লড়াই করতে পারেনি মিলান। ঘরের মাঠে মিলান ডার্বিতে হারার পর জুভেন্টাসের কাছেও হারতে হল ভিনসেঞ্জো মনতেল্লার দলকে।

    আন্দ্রে সিলভাকে ছাড়াই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে খেলতে নেমে অবশ্য শুরুটা মন্দ ছিল না মিলানের। কিন্তু সময়ের সাথেই গুছিয়ে উঠতে থাকে জুভেন্টাস, আর ছন্দ হারায় মিলান। শুরুতে সুবিধা করতে না পারলেও ম্যাচে এগিয়ে যায় জুভেন্টাসই। ২৩ মিনিটে পাউলো দিবালার পাস থেকে দারুণ এক শটে জালে বল জড়ান হিগুয়াইন।  



    ওই শটেই সিরি আতে নিজের ১০০তম গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেন আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার। নাপোলিতে যোগ দেওয়ার আগে রিয়াল মাদ্রিদের হয়েও লা লিগাতে করেছিলেন ১০৭ গোল। ইউরোপের শীর্ষ ৫ লিগের অন্তত দুইটিতে গত ২০ বছরে ১০০ গোলের মাইলফলক ছুঁয়েছেন এই নিয়ে মাত্র দুইজন। হিগুয়াইনের সাথে তালিকায় আরেক জনের নাম, ইব্রাহিমোভিচ।   

    হিগুয়াইনের গোলে পিছিয়ে পড়ার পরও অবশ্য মিলান বেশ কিছু ভালো সুযোগ পেয়েছিল, বেশিরভাগই এসেছে নিকোলা কালিনিচের কাছে। প্রথমার্ধের শেষ দিকে তার নেওয়া একটি শট বারপোস্টে লেগে ফেরত আসলে আর ম্যাচে ফেরা হয়নি মিলানের। এর আগে লুকাস বিলিয়ায়ও নষ্ট করেছেন সহজ একটি সুযোগ।

    বিরতির আগে ম্যাচে ফেরার ইঙ্গিত দিলেও দ্বিতীয়ার্ধে একেবারেই খুঁজে পাওয়া যায়নি ‘প্রথমার্ধের’ মিলানকে। জিয়ানলুইজি বুফনকেও পরের অর্ধে খুব বেশি বেগ পেতে হয়নি। ৬৩ মিনিটে আবারও হিগুয়াইন গোল করলে কাজটা আরও সহজ হয়ে যায় জুভেন্টাসের। আসামোয়ার পাস দিবালা ডামি করে ছেড়ে দিলে বল পেয়ে যান হিগুয়াইন। সেখান থেকেই জোরালো শটে আরও একবার খুঁজে পান জালের ঠিকানা।

    দ্বিতীয় গোলের পরই আন্দ্রেয়া বারজালিকে নামিয়ে রক্ষণটা আরও দৃঢ় করেন ম্যাক্সিমিলিয়ানো অ্যালেগ্রি। মিলান কোচ মন্তেল্লাও আন্দ্রে সিলভাকে নামিয়ে আক্রমণভাগ শক্তিশালী করার চেষ্টা করেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সফল হয়েছেন অ্যালেগ্রিই। শেষ দিকে দিবালাও গুটিকয়েক সুযোগ পেয়েছিলেন গোলের। কখনও বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছেন জিয়ানলুইজি ডোনারুমা, আবার কখনও নিজের দোষেই বাড়াতে পারেননি ব্যবধান। না হলে জুভেন্টাসের জয়টা হতে পারত আরও বড়!  

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন