• " />

     

    এরপরও হাথুরুকে রাখতে চাইছে বিসিবি

    গত সপ্তাহেই বিসিবির কাছে নিজের পদত্যাগপত্র পাঠিয়েছিলেন। বোর্ড প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান বলেছিলেন, জাতীয় দলের কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে যদি না থাকতে চান তাহলে তাকে জোর করা হবে না। তবে এবার জানা গেলো, হাথুরুসিংহেকে সাকিব-মুশফিকদের কোচ হিসেবে রেখে দেওয়ার শেষ চেষ্টা করবে বিসিবি।

     

     

     

    হাথুরুসিংহের পদত্যাগের খবর প্রকাশ পেলে বোর্ড পরিচালক ও জাতীয় দলের ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজন বলেছিলেন, বিসিবি চাইলে পরবর্তী কোচের দায়িত্ব তিনিও পালন করতে পারেন। তিনি জানালেন, হাথুরুকে ফিরিয়ে আনতে চেষ্টার কোনো কমতি রাখবে না বোর্ড, “আমি জানি না তিনি কবে দেশে ফিরবেন। তবে আমরা তাঁর সাথে বসে পুরো ব্যাপারটা নিয়ে আলোচনা করব। তিনি যেন থেকে যান সেজন্য এই সমস্যার সমাধানও খোঁজা হবে। কোচ হিসেবে তাঁর সাফল্য কেউ অস্বীকার করতে পারবে না। তাই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে আমাদের সব ভেবে দেখতে হবে।”

     

    জানা গেছে, আগামী ২০১৯ সালের বিশ্বকাপ পর্যন্ত হাথুরুকেই কোচ হিসেবে রেখে দেওয়ার চিন্তা করছে বিসিবি। যদি সেটা সম্ভব না হয়, তাহলে শ্রীলংকার বিপক্ষে সিরিজ পর্যন্ত হলেও তাকে ধরে রাখতে চাইবেন তাঁরা। আগামী বছরের জানুয়ারিতে হবে এই সিরিজ।

     

    জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন বলছেন, শ্রীলংকা সিরিজকে সামনে রেখে নাকি ১৮ ডিসেম্বর থেকে অনুশীলন ক্যাম্প পরিচালনা করার কথা ভেবেছিলেন হাথুরুসিংহে। তবে সামনাসামনি কথা না হওয়া পর্যন্ত কিছুই নিশ্চিত করতে পারছেন না তিনি, “যতক্ষণ না আমরা তাঁর সাথে বসে আলোচনা করি, ততক্ষণ বুঝতে পারব না তিনি কী ভাবছেন। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের পুরোটাই আমি তাঁর সাথে ছিলাম, সেখানে এরকম কিছুর আভাস তিনি দেননি।”

     

     

     

    এদিকে গুঞ্জন উঠেছে, বাংলাদেশের কোচের দায়িত্ব ছেড়ে শ্রীলংকার কোচ হতে যাচ্ছেন হাথুরু। লংকান ওপেনার দিমুথ করুনারত্নে বলেছিলেন, হাথুরুসিংহে লংকান দলের দায়িত্ব নিলে সেটা দলের জন্যই ভালো হবে। তবে পুরো ব্যাপারটা শ্রীলংকা ক্রিকেট বোর্ডের ওপরেই ছেড়ে দেন।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন