• সিরি আ
  • " />

     

    হেরেই গেল বুফনবিহীন জুভেন্টাস

     

    ৯০ মিনিট পর্যন্ত ৩-০ তে পিছিয়ে দল। যোগ করা সময়ের প্রথম মিনিটেই পেনাল্টি থেকে ব্যবধান কমালেন জুভেন্টাসের গঞ্জালো হিগুয়াইন। তিন মিনিট পর বক্সের বাইরে থেকে দুর্দান্ত এক শটে গোল পেলেন পাউলো দিবালাও। ম্যাচের বাকি আর ২ মিনিট, সমতা আনার জন্য মরিয়া জুভেন্টাসের সবাই উঠে এলেন সাম্পদোরিয়ার ভাগে। কিন্তু তৃতীয় গোলের দেখা পেলো না জুভরা। সিরি আতে সাম্পদোরিয়ার কাছে ৩-২ গোলে হেরে হোঁচট খেয়েছে জুভেন্টাস।

     

     

     

    বিশ্বকাপ থেকে ইতালির ছিটকে পড়ার ‘শোক’ কাটিয়ে ওঠার জন্য বিশ্রাম দেওয়া হয়েছিল জিয়ানলুইজি বুফনকে। বুফনের অনুপস্থিতিটা ম্যাচের সময় গড়ানোর সাথে সাথে খুব ভালোমতোই টের পেয়েছে জুভেন্টাস। প্রথমার্ধে দুই দলের ফরোয়ার্ডদের গোল মিসের মহড়ায় এগিয়ে যেতে পারেনি কোনো দলই। মারিও মাঞ্জুকিচ, হিগুয়াইন, দিবালা, সুযোগ নষ্ট করেছেন জুভেন্টাসের তিনজনই। সাম্পদোরিয়ার হয়ে গোলের সুযোগ হাতছাড়া করেছেন ফ্যাবিও কুয়াগলিয়ালেরা।

     

    ৫২ মিনিটে সাম্পদোরিয়াকে এগিয়ে দেন ডুভান জাপাটা। তাঁর দারুণ এক হেড ঠেকানোর উপায় খুঁজে পাননি জুভেন্টাস গোলরক্ষক ওজসিচ জেনসি। চার মিনিট পর দ্বিতীয় গোল পেতে পারতেন জাপাটা, তবে এবার তাকে হতাশ করেন জুভ কিপার। ৬৩ মিনিটে ম্যাচে সমতা আনতে পারতেন দিবালা, তবে তাঁর দুর্বল শটে গোল আসেনি।

     

    ৭১ মিনিটে ব্যবধান বাড়ান লুকাস টরেইরা। গ্যাস্টন রামিরেজের পাসে বক্সের বাইরে থেকে জোরালো শটে বল জালে জড়ান। ৮ মিনিট পর জুভেন্টাসের জালে তৃতীয়বারের মতো বল ঢোকান জিয়ানমার্কো ফেরারি। ৩-০ গোলে পিছিয়ে পড়া জুভেন্টাসের ম্যাচে ফেরার আশা অনেকটাই শেষ হয়ে যায়।

     

     

     

    নির্ধারিত সময়ের খেলা শেষ হওয়ার পর দুই গোল শোধ করে কিছুটা আশার আলো দেখেছিল জুভেন্টাস। হিগুয়াইন ও দিবালার শেষ মুহূর্তের গোল শুধু ব্যবধানই কমিয়েছে। এই পরাজয়ে ১৩ ম্যাচে ৩১ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার তৃতীয় স্থানে নেমে আসল জুভেন্টাস। 

     

     

    জুভেন্টাসের পরাজয়ের দিনে জয় নিয়েই মাঠ ছেড়েছে ইন্টার মিলাম। মাউরো ইকার্দির জোড়া গোলে আটলান্টার বিপক্ষে ২-০ ব্যবধানের সহজ জয় পায় ইন্টার। ম্যাচের ৫১ ও ৬০ মিনিটে বল জালে জড়ান ইকার্দি। এবারের মৌসুমে লিগের ১৩ ম্যাচে ইকার্দির গোলসংখ্যাও ১৩। প্রতিপক্ষের গোলরক্ষকের দারুণ এক সেভে ফসকে গেছে হ্যাটট্রিকের সুযোগ।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন