• নিদাহাস ট্রফি ২০১৮
  • " />

     

    ছয় মাসের জন্য মাঠের বাইরে নাসির!

    কাল যখন ক্রাচে ভর দিয়ে খোঁড়াতে খোঁড়াতে বিসিবি কার্যালয়ে এলেন, তখনই জানা গিয়েছিল গুরুতর কিছু হয়েছে। লিগামেন্ট ছিঁড়ে যেতে পারে, এমন আশঙ্কাও করা হচ্ছিল। কাল অ্যাপোলো হাসপাতালে এমআরআই করানোর পর নিশ্চিত হয়েছে, নাসির হোসেনের লিগামেন্ট ছিঁড়ে গেছে। সেজন্য ছয় মাস তাঁকে মাঠের বাইরে থাকতে হতে পারে, নিশ্চিত করেছেন বিসিবি চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী।

    নাসির কাল নিজেই বলেছিলেন, গুরুতর কিছুরই আশঙ্কা করছেন। সেই আশঙ্কাই সত্যি হলো। দেবাশীষ চৌধুরী আজ নিশ্চিত করলেন সেটাই।

    ‘নাসিরের ডান হাঁটুর লিগামেন্ট ইনজুরির আশঙ্কা করা হচ্ছিল। এমআরআই করার পর আমরা নিশ্চিত হতে পেরেছি। ওর এন্টেরিওর ক্রুসিয়েট লিগামেন্ট বা এসিএল পুরোটাই ছিঁড়ে গেছে। যেহেতু পুরোটাই ছিঁড়ে গেছে লিগামেন্ট, এজন্য অস্ত্রোপচারের সিদ্ধান্ত নিতে হচ্ছে আমাদের। দু'-একদিনের মধ্যে আমরা সিদ্ধান্ত নেব কোথায় করা হবে। অস্ত্রোপচার করানোর পর খেলায় ফিরতে ওর মাস ছয়েকের মত সময় লাগবে খেলায় ফিরতে।

    আমরা দু'-তিন জায়গায় অ্যাপয়েনমেন্ট নিয়ে রাখছি। আমাদের সিইও দেশের বাইরে আছেন। উনি ফিরলে সিদ্ধান্ত হবে।’

    দেবাশীষ চৌধুরী অবশ্য আশ্বস্ত করেছেন এখনই তাড়াহুড়োর দরকার নেই, ‘যত দ্রুত করা হবে অস্ত্রোপচার, তত দ্রুত খেলায় ফিরতে পারবে। তব এটা কোনো জরুরী অস্ত্রোপচার না যে, এখনই না করলে বড় কোনো ক্ষতি হবে। বিশ্রামে তো এমনিতেই থাকতে হবে। আর বাইরে পাঠালে ভিসা ও অ্যাপয়েনমেন্টের ব্যাপার আছে। কিছু সময় তো লাগবেই।’

    কিন্তু এই চোট কীভাবে হলো? নাসির দাবি করেছেন, অনুশীলনের সময় পেয়েছেন। তবে সূত্র বলছে, ফুটবল খেলতে গিয়েই চোট পেয়েছেন। দেবাশীষ চৌধুরী এ নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হলেন না, ‘যেভাবেই হোক, আমার কাছে মূল জিনিস লিগামেন্ট ইনজুরি। আমি শুনেছি ফিটনেস ট্রেনিংয়ের সময় হয়েছে। যেটাই হোক, আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ হলো লিগামেন্ট ছিঁড়ে গেছে।’