• দক্ষিণ আফ্রিকা-পাকিস্তান সিরিজ
  • " />

     

    • দক্ষিণ আফ্রিকা-পাকিস্তান সিরিজ

    ১১ বছর পর পাকিস্তানে ডি ভিলিয়ার্স

    সেই ২০০৭ সালের শেষভাগে দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে পাকিস্তান সফরে গিয়েছিলেন। এরপর পেরিয়ে গেছে ১১ বছর, পাকিস্তানের মাটিতে এবি ডি ভিলিয়ার্সের আর খেলা হয়নি। প্রায় এক যুগ পর পাকিস্তানে খেলতে যাচ্ছেন ডি ভিলিয়ার্স। তিনি নিশ্চিত করেছেন, এই মৌসুমে পিএসএলে লাহোর কালান্দার্সের হয়ে দুটি ম্যাচ খেলতে লাহোরে যাবেন তিনি।

    ২০০৯ সালে লাহোরে সফররত শ্রীলংকার বাসে সন্ত্রাসী হামলার পর থেকেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নির্বাসনে আছে পাকিস্তান। ২০১৫ সালে জিম্বাবুয়ে, ২০১৭ সালে বিশ্ব একাদশ ও ২০১৮ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ছাড়া সেখানে খেলতে আসেনি কেউই। ২০১৭ ও ২০১৮ সালের পিএসএলের কিছু ম্যাচ পাকিস্তানে হলেও বেশিরভাগ বিদেশি ক্রিকেটাররা সেখানে যাননি।

    এই মৌসুমে সেই প্রথা ভেঙে পাকিস্তানে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এবি, ‘আমি উচ্ছ্বাসের সাথে জানাচ্ছি, এবার লাহোরের হয়ে ৯ ও ১০ মার্চ পিএসএল খেলতে পাকিস্তান যাচ্ছি। গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে আবার খেলার জন্য মুখিয়ে আছি। আশা করি লাহোরকে কাঙ্ক্ষিত ফলাফল এনে দিতে সাহায্য করতে পারব। পারিবারিক কারণে গ্রুপ পর্বের শেষভাগে দলের সাথে যোগ দেব।’

    ২০১৭ সালে বিশ্ব একাদশের হয়ে পাকিস্তানে খেলতে এসেছিলেন এবির সতীর্থ হাশিম আমলাসহ পাঁচজন আফ্রিকান ক্রিকেটার। ডি ভিলিয়ার্সের আশা, খুব দ্রুতই নিয়মিতভাবে আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজন করবে পাকিস্তান, ‘ক্রিকেট এখানে দ্বিতীয় প্রধান ধর্মের মতো। ২০০৭ সালের কথা এখনোভুলিনি। আমার মনে হয়, এখানে ক্রিকেটকে ফিরিয়ে আনতে আমারও ভূমিকা রাখা উচিত। পাকিস্তানের ক্রিকেট ভক্তদের জন্য আমার কষ্ট হয়, তাদের তো কোনো দোষ নেই। আশা করি আগের মতো নিয়মিত ম্যাচ আয়োজন করবে পাকিস্তান।’

    এদিকে  ডি ভিলিয়ার্সের এমন সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যান এহসান মনি, ‘এবির এই সিদ্ধান্তকে আমরা স্বাগত জানাই, তাকে আতিথিয়তা দেওয়ার জন্য মুখিয়ে আছে পাকিস্তান। তিনি এখানে আসলে অনেক সমর্থকরা মাঠে আসবেন খেলা দেখতে। তাঁর দেখান পথে অন্যরাও এখানে খেলতে আসবে, এমনটাই চাই আমরা।

    ১৪ ফেব্রুয়ারি দুবাইতে শুরু হবে পিএসএলের চতুর্থ আসর। ৭ মার্চ থেকে শুরু হবে পাকিস্তান পর্ব। সেখানে এবার ফাইনালসহ মোট আটটি ম্যাচ হবে।