• নেশনস কাপ
  • " />

     

    • নেশনস কাপ

    ফিফার বিশ্বকাপে দল বাড়ানোর প্রস্তাবে ইউয়েফার দ্বিমত

    ২০১৬ সালে সেপ ব্ল্যাটারের জায়গায় ফিফার প্রেসিডেন্ট হয়েছিলেন জিয়ান্নি ইনফান্তিনো। প্রেসিডেন্ট হয়েই ২০২৬ থেকে ৩২ দলের বদলে ৪৮ দলের বিশ্বকাপের প্রস্তাব করেন তিনি। সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটে জিতে যান ইনফান্তিনো। কিন্তু ফিফার এই পরিবর্তনের সাথে একমত নয় ইউয়েফা, জানিয়েছেন ইউয়েফা প্রেসিডেন্ট আলেকজান্ডার শেফেরিন।

    শুধু বিশ্বকাপ নয়, ফিফার সাথে ইউয়েফার মতের অভাব দেখা গেছে আরও এক জায়গায়। ইউয়েফা নেশনস লিগের সাফল্য দেখে টুর্নামেন্টটিকে বৈশ্বিক (এশিয়া, আফ্রিকা, লাতিন আমেরিকা অন্তর্ভুক্ত করে) রূপ দিতে চাচ্ছেন ইনফান্তিনো। সেই সাথে বিশ্বকাপের নতুন ফরম্যাটে কোনও ড্র রাখতে চান না ইনফান্তিনো, এমনকি গ্রুপপর্বে ড্র হওয়া ম্যাচগুলোরও নিষ্পত্তি হবে পেনাল্টি শুট আউটে। ইউয়েফার এক সংবাদ সম্মেলনে ফিফার সাথে দ্বিমতের ব্যাপারটা তুলে ধরেছেন শেফেরিন, 'ফিফার বিশ্বকাপ ৩২ দল থেকে ৪৮ দলে করার সিদ্ধান্তের সাথে আমরা একমত নই। গ্রুপপর্বে পেনাল্টি অন্তর্ভুক্ত করাটা একেবারেই বেমানান লেগেছে আমাদের কাছে। ম্যাচের সংখ্যা বাড়ালেও নতুন ফরম্যাটে অনিশ্চয়তার আকর্ষণ কমে যাবে অনেকটাই। সেই সাথে ইউরোপিয়ান লিগ অফ নেশনসকে বৈশ্বিক রূপ দেওয়ার সাথেও একমত নই আমরা। ফিফার কাছ থেকে আমরা সম্মান এবং আমাদের মতের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন চাই। আপাতত তাদের থেকে কোনওটাই পাচ্ছি না আমরা।'

     

     

    গত বছর প্রথমবারের মত নারীদের ফুটবলেও 'ফিফা বর্ষসেরা'র খেতাব চালু করে ফিফা। কিন্তু মেয়েদের ফুটবলে প্রথম ব্যালন ডি'অর জেতা এডা হেগেরবার্গকে বেশ বিব্রতকর অবস্থাতেই ফেলে দেন অনুষ্ঠানের সঞ্চালক এবং ডিজে মার্টিন সলভেইগ। ব্যালন ডি'অরের মঞ্চেই যৌন বৈষম্যের শিকার হন এডা। নরওয়ের ফুটবলারকে মঞ্চেই মার্টিন জিজ্ঞেস করে বসেন, তিনি কোমর দুলিয়ে নাচতে জানেন কি না। সাফ 'না' জানিয়ে দিলেও এডার চেহারায় বিরক্তি ছিল স্পষ্ট। একবিংশ শতাব্দীতে এসেও এমন ঘটনায় দু:খ প্রকাশ করেছেন শেফেরিন, 'পুরুষদের মত নারী ফুটবলারদেরও যথাযথ সম্মান প্রদর্শন করা উচিত। এডার সাথে যা হয়েছে তা দু:খজনক। এই যুগে এসে এমনটা যেন আর না হয়, সেজন্য সম্পূর্ণ চেষ্টা করছে ইউয়েফা। নারীরাও ফুটবল ইতিহাসের অংশ।'