• নেশনস কাপ
  • " />

     

    ফ্রান্স, স্পেনের সঙ্গে সেমিফাইনালে বেলজিয়াম ও ইতালি

    ফ্রান্স, স্পেনের সঙ্গে সেমিফাইনালে বেলজিয়াম ও ইতালি    

    ফ্রান্স ও স্পেন আগেই জায়গা নিশ্চিত করে রেখেছিল। নেশনস লিগের গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচ ডে তে তাদের সঙ্গে যোগ হলো বেলজিয়াম ও ইতালি। ডেনমার্ককে ৪-২ গোলে হারিয়ে বেলজিয়াম ও  বসনিয়াকে ২-০ তে হারিয়ে ইতালি জায়গা নিশ্চিত করেছে ফাইনাল রাউন্ডে। আগামী বছর অক্টোবরে সেমিফাইনাল ও ফাইনাল দিয়ে অনুষ্ঠিত হবে নেশনস লিগের ফাইনাল রাউন্ড।


    ডেনমার্ককে হারানোর ম্যাচে জোড়া গোল করেছেন রোমেলু লুকাকু। তার ওই দুই গোলই বেলজিয়ামকে সেমিফাইনালের পথে তুলে দিয়েছে। ম্যাচের মাত্র তৃতীয় মিনিটে ইয়েরি টিয়েলেমানস দূরপাল্লার নিচু শটে বল জালে জড়ানোর পর বেলজিয়াম এগিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু ১৭ মিনিটে উইন্ডের গোলে ডেনমার্ক আবার সমতায় ফেরে। বেলজিয়ামকে হারাতে পারলে সেমিফাইনাল নিশ্চিত- এমন সমীকরণ নিয়ে খেলতে নামা ডেনমার্ক এরপর বেশ কয়েকবার বিপদে ফেলেছিল বেলজিয়ামকে। বিরতির আগে বার্সেলোনার মার্টিন ব্রাথওয়েটের একটি শট রিয়াল মাদ্রিদ গোলরক্ষক থিবো কোর্তোয়া ঠেকিয়ে দিয়ে দলকে রক্ষা করেন বিপদের হাত থেকে।

    অন্যপ্রান্তে ক্যাস্পার স্মাইকেলও ভালো কিছু সেভ করছিলেন। কিন্তু ৫৭ মিনিটে তিনি আর দলকে রক্ষা করতে পারেননি। লুকাকুর শট তিনি প্রথমে সেভ করলেও পরে সেটা গোলে পরিণত হয়। ৬৯ মিনিটে ডান দিক থেকে আসা ক্রসে হেড করে লুকাকু ব্যবধান আরও বাড়িয়ে নেন। এরপর আবারও ব্রাথওয়েট মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছিলেন।।  তার ওভারহেড কিকও তখন ঠেকিয়ে দেন কোর্তোয়া। কিন্তু কোর্তোয়ার দারুণ দুইটি সেভ ম্লান হয়ে গেছে বিব্রতকর এক মুহুর্তের কাছে।

    ৩-১ গোলে এগিয়ে থাকা অবস্থায় হাস্যকর এক ভুলের খেসারত দিয়ে আত্মঘাতী গোল করে বসেন কোর্তোয়া। সতীর্থের দেওয়া ব্যাক পাস রিসিভ করতে ব্যর্থ হয়ে ৮৬ মিনিটে নিজের জালেই বল ঢুকিয়ে দেন বেলজিয়াম গোলরক্ষক। শেষদিকে কেভিন ডি ব্রুইন আবার ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। 

    অন্যগ্রুপে ইতালির সমীকরণও ছিল সহজ। বসনিয়াকে হারাতে পারলে সেমিফাইনাল নিশ্চিত হত রবার্তো মানচিনির। আন্দ্রেয়া বেলাত্তি ও ডমিনিকো বেরার্দির দুই অর্ধের দুই গোলে সে লক্ষ্য পূরণ হয়েছে আজ্জুরিদের। ইতালি গ্রুপে টপকে গেছে নেদারল্যান্ডসকে। পোল্যান্ডকে ২-১ গোলে হারিয়েও ইতালির চেয়ে এক পয়েন্টে পিছিয়ে থেকে আর এবার নক আউট পর্বে যাওয়া হয়নি গতবারের রানার্স আপদের।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন