• ভারত-অস্ট্রেলিয়া সিরিজ
  • " />

     

    • ভারত-অস্ট্রেলিয়া সিরিজ

    দলের জন্য পাঁচ নম্বরে ব্যাট করতেও রাজি ফিঞ্চ

    নিজের ১০০ ওয়ানডে ইনিংসের ৯৮টিতেই নেমেছেন ওপেনিংয়ে। ২০১৫ বিশ্বকাপেও ডেভিড ওয়ার্নারের সাথে জুটি বেঁধে অস্ট্রেলিয়াকে ভালো সূচনা এনে দিয়েছিলেন অ্যারন ফিঞ্চ। তবে এবারের বিশ্বকাপে ওপেনিংয়ে তার শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী হতে পারেন উসমান খাওয়াজা। ফিঞ্চ অবশ্য নিজের ব্যাটিং পজিশন নিয়ে মোটেও চিন্তিত নন। অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক বলছেন, দলের জন্য তিনি পাঁচ নম্বরে নামতেও দ্বিধা করবেন না।

    শেষ আট মাসে ফর্মটা একদম ভালো যাচ্ছে না ফিঞ্চের। ১২ ইনিংসে ফিফটি পেয়েছেন মাত্র একটি। সর্বশেষ সেঞ্চুরি এসেছে গত বছরের জুনে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। এই মুহূর্তে খাওয়াজার সাথে ওপেনিংয়ে নামছেন। তবে নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে বিশ্বকাপে ফিরছেন ওয়ার্নার। তখন কোন দুইজন ওপেন করবেন, সেটা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। ভারতের বিপক্ষে সিরিজে ৩৮৩ রান করে ফর্মের তুঙ্গে থাকা খাওয়াজাই হয়ত ওয়ার্নারের সঙ্গী হতে পারেন।

    ওয়ার্নার-স্মিথ ফিরলে নিজের ব্যাটিং পজিশন বদলাতে রাজি ফিঞ্চ, ‘দলের জন্য যদি আমাকে পরে ব্যাটিংয়ে নামতে হয়, আমি সেটায় কোন সমস্যা দেখছি না। ওপেনিং, তিন নম্বর কিংবা পাঁচ নম্বর; আমি যেখানে ব্যাটিং করলে দলের ভালো হবে সেটাই করবো। ব্যক্তিগত সাফল্য নিয়ে আমি ভাবি না। পাঁচ নম্বরে ব্যাট করলে আমি সেঞ্চুরি পাব না, বেশি ব্যাটিংয়ের সুযোগও পাবো না; এসব কখনোই চিন্তা করি না।’

     

     

    এক বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফিরছেন ওয়ার্নার-স্মিথ। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ইংল্যান্ডের মাটিতে হওয়া বিশ্বকাপে তাদের নিয়ে আলোচনাটাও একটু বেশি হবে। সেটা অবশ্য দলের ওপর প্রভাব ফেলবে না বলেই বিশ্বাস ফিঞ্চের, ‘তাদের ফেরা নিয়ে অনেক কিছুই লেখা হবে। এটা আসলে অস্বীকার কিংবা এড়িয়ে যাওয়ার সুযোগ নেই। তবে দলের কেউ এটা নিয়ে খুব একটা মাথা ঘামাবে না বলেই আমার বিশ্বাস। ওয়ার্নার-স্মিথও খেলাতেই তাদের পূর্ণ মনোযোগটা দেবেন। অন্যরা কী বলল, সেটায় যে কিছুই যায় আসে না, এটা তাঁরা দুজনই ভালোভাবে বোঝেন।’'