• অ্যাশেজ ২০১৯
  • " />

     

    • অ্যাশেজ ২০১৯

    স্মিথকে আউট করার উপায় খুঁজে পাচ্ছে না ইংল্যান্ড

    প্রথম ইনিংসে দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি করে অস্ট্রেলিয়াকে এনে দিয়েছেন লড়াই করার পুঁজি। দ্বিতীয় ইনিংসেও ইংল্যান্ডের দুশ্চিন্তার মূল কারণ স্টিভ স্মিথই। তৃতীয় দিনশেষে সাত উইকেট হাতে রেখে অস্ট্রেলিয়ার লিড ৩৪, ৪৬ রানে অপরাজিত আছেন স্মিথ। গতকাল দিনের খেলা শেষে ইংলিশ পেসার ক্রিস ওকস জানিয়েছেন, স্মিথকে আউট করতে পুরো ম্যাচজুড়েই মাথা চাপড়ে মরেছেন তাঁরা। 

    স্মিথ যেভাবেই হোক আউট করতে হবে, মানছেন ওকস, ‘সে বিশ্বমানের ক্রিকেটার। তাঁকে আউট করার উপায় খুঁজে বের করতে হবে। এই পিচে সেটা করা আরও কঠিন হয়ে গেছে। পিচে আর গতি নেই। দুই প্রান্ত থেকে চাপ বাড়িয়ে আশা করতে হবে যে ব্যাটসম্যান যেন ভুল করে। কিন্তু স্মিথ বেশি ভুল করে না। চতুর্থ দিনের আগে আমরা তাঁকে নিয়ে কিছু পরিকল্পনা সাজাবোই।’

    গত অ্যাশেজে ঘরের মাঠে ১৩৭.৪ গড়ে ৬৮৭ রান করেছিলেন স্মিথ। এক বছর নিষিদ্ধ থাকার পর টেস্টে ফিরে এবারের শুরুটাও হয়েছে দারুণ। সিরিজজুড়েই যেন ইংল্যান্ডকে ভোগাতে না পারেন স্মিথ, এই চেষ্টাই করবেন ওকসরা, ‘স্মিথ লেগসাইডে অনেক বেশি শট খেলে। লেগে বেশি ফিল্ডার রাখলেও সে সহজে সেখানে ক্যাচ দেয়না। এই ব্যাপারটায় সে খুবই দক্ষ, তাঁর প্রশংসা করতেই হয়। প্রথম ইনিংসের শেষভাগে সে কতটা আক্রমণাত্মক ছিল সেটা সবাই দেখেছে। তাঁকে তাই দ্রুত আউট করতে হবে।’ 

    তৃতীয় দিনশেষে ৩৪ রানে এগিয়ে আছে অস্ট্রেলিয়া। ওকসের বিশ্বাস, এখন ম্যাচে সমতা বিরাজ করছে, ‘ম্যাচটা এখন কারো পক্ষে নেই। অস্ট্রেলিয়ার লিড ৩০ রানের মতো, তাদের তিন উইকেট পড়ায় খুশি। কিন্তু অনেক বেশি রান দিয়েছি আমরা। চতুর্থ দিনের শুরুতে দুইটি উইকেট নেওয়াটা খুব গুরুত্বপূর্ণ হবে। লিড ৫০-৬০ হওয়ার আগেই যদি তাদের পাঁচ উইকেট চলে যায়, তাহলে সেটা ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেবে।’