• অ্যাশেজ ২০১৯
  • " />

     

    • অ্যাশেজ ২০১৯

    কনকাশনে স্মিথ, ইতিহাস গড়ে বদলি ল্যাবুশেন

    লর্ডস টেস্টের বাকি অংশ থেকে ছিটকে গেছেন স্টিভ স্মিথ। বিলম্বিত কনকাশনের কারণে মাঠে নামেননি তিনি। তার বদলি হিসেবে মারনাস ল্যাবুশেনের অন্তর্ভুক্তির অস্ট্রেলিয়ার আবেদন নিশ্চিত করেছে আইসিসি। ফলে টেস্ট ক্রিকেটে প্রথম বদলি ক্রিকেটার হয়ে গেলেন ল্যাবুশেন। তিনি ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিং- করতে পারবেন সবই। আইসিসির নতুন নিয়ম অনুযায়ী, কনকাশনে যাওয়া ক্রিকেটারের বদলি নিতে পারবে দলগুলি, তবে তাকে হতে হবে উঠে যাওয়া ক্রিকেটারের কাছাকাছি ভূমিকার। স্মিথের জায়গায় ল্যাবুশেনের অন্তর্ভুক্তির অনুমোদন দিয়েছেন ম্যাচ রেফারি রঞ্জন মাদুগালে। 

    চতুর্থ দিন জফরা আর্চারের বাউন্সারে মাথার নিচের অংশে বাঁ কানের নিচের দিকে আঘাত পেয়েছিলেন স্মিথ। এরপর উঠে গিয়েছিলেন মাঠ থেকে, পরে অবশ্য ব্যাটিংয়ে নেমে করেছিলেন আরও ১২ রান। দ্বিতীয় ইনিংসে অবশ্য ফিল্ডিং করেননি আর, তার বদলি হিসেবে আগের দিন থেকেই ফিল্ডিং করছিলেন ল্যাবুশেন। রাতে পর্যবেক্ষণে রাখার কথা ছিল স্মিথকে, ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া এদিন এক বিবৃতিতে নিশ্চিত করেছে, বিলম্বিত কনকাশন হয়েছে তার। 

    “রাতভর স্টিভকে সূক্ষ্ণভাবে পর্যবেক্ষণ করা হয়েছে মেডিকেল স্টাফদের দ্বারা। তারা রিপোর্ট করেছেন, রাতে ঘুম ভাল হলেও সকালে খানিকটা মাথা ব্যথা ও অসংলগ্ন অবস্থায় উঠেছে সে”, বলা হয়েছে সে বিবৃতিতে। 

    “ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার কনকাশন প্রটোকল অনুয়ায়ী, স্টিভ স্মিথের আবারও কনকাশন টেস্ট করা হয়েছে সকালে। সেখানে তার ধারাবাহিক উপসর্গে একটু অবনতি হয়েছে। টিম চিকিৎসক রিচার্ড স এরপর স্মিথকে ম্যাচ থেকে সরিয়ে নিয়েছেন।” 

    “ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার পরিসংখ্যান বলে, অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটে প্রায় ৩০ শতাংশ কনকাশন বিলম্বিত হয়। চোট পাওয়ার দিন এ টেস্টে উৎরে গিয়ে ভাল বোধ করার ২৪-৪৮ ঘন্টা পর এসব উপসর্গ প্রকাশ করা ক্রিকেটারদের জন্য নতুন নয়।” 

    তৃতীয় টেস্টে তিনি খেলবেন কিনা, সে ব্যাপারে তারা বলেছে, “সামনের দিনগুলিতে এটি ভাবা হবে। তবে পরের টেস্টের আগের সংক্ষিপ্ত সময় স্মিথের পক্ষে নেই খুব একটা। তার ফিটনেস ক্রমাগত প্রক্রিয়ায় পর্যবেক্ষণ করা হবে, সতর্কতা হিসেবে তার গলায় স্ক্যান করা হবে রবিবার।”