• অ্যাশেজ ২০১৯
  • " />

     

    • অ্যাশেজ ২০১৯

    স্টোকসকে আউটের উপায় খুঁজতে রাতের ঘুম উড়ে গেছে পেইনের!

    অধিনায়ক হিসেবে ইংল্যান্ডের মাটিতে অ্যাশেজ জয় থেকে নিঃশ্বাস দূরত্বে ছিলেন টিম পেইন। তার অপেক্ষাটা বাড়িয়ে সিরিজে সমতা এনেছে বেন স্টোকসের সেই অতিমানবীয় ইনিংসই। কোনভাবেই স্টোকসকে সেদিন আউট করতে পারেননি অস্ট্রেলিয়ান বোলাররা। ওল্ড ট্রাফোর্ডে চতুর্থ টেস্টের আগে সংবাদ সম্মেলনে টিম পেইন স্বীকার করে নিলেন, স্টোকসকে আউট করার উপায় বের করতে গিয়ে রাতের ঘুম উড়ে গেছে তার! 

    হেডিংলিতে শেষ উইকেটে ইংল্যান্ডের দরকার ছিল ৭৩ রান। জ্যাক লিচকে নিয়ে অবিশ্বাস্যভাবে সেটা পাড়ি দিয়েছেন স্টোকস। যে জস হ্যাজলউড, প্যাট কামিন্সরা প্রথম ইনিংসে ইংলিশ ব্যাটিং লাইনআপের কাউকেই দাঁড়াতে দেননি, তাদের ওপরই চড়াও হয়ে স্টোকস মেরেছেন একের পর এক চার-ছয়। পেইনসহ অস্ট্রেলিয়ানরা তাই স্তব্ধ হয়েই দেখেছেন স্টোকসের ম্যাচ জয়ের উল্লাস। 

    স্টোকসে কীভাবে আউট করবেন, সেটা ভেবেই পাচ্ছেন না পেইন, ‘আমার অধিনায়কত্ব নিয়ে ভেবে খুব একটা চিন্তিত নই, ঘুমও নষ্ট হয়নি। কিন্তু কীভাবে স্টোকসকে আউট করব, সেটা নিয়ে ভেবে নিশ্চিতভাবেই ঘুম নষ্ট হয়েছে আমার! সে দুর্দান্ত একজন ক্রিকেটার, এই মুহূর্তে অবিশ্বাস্য ফর্মে আছে। ম্যাচ জিততে হলে তাকে দ্রুতই ফেরাতে হবে।’ 

     

     

    ওল্ড ট্রাফোর্ডে স্টোকসের জন্য বিশেষ পরিকল্পনা সাজাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া, জানালেন পেইন, ‘তাকে নিয়ে আমাদের বেশ কিছু পরিকল্পনা আছে। ওইগুলোকে অবশ্য ভালোভাবে প্রয়োগ করতে হবে। লায়ন স্টোকসের বিপক্ষে ভালো বোলিং করেছিল। তাকে আউট করার অনেক সুযোগও তৈরি হয়েছিল। সামনের ম্যাচেও যদি একইভাবে সুযোগ তৈরি করতে পারি, তাহলে স্টোকসকে ফেরানোটা সহজ হবে। আমাদের ফিল্ডিংটা আরও ভালো হতে হবে। শেষ দুই টেস্টে আমাদের ফিল্ডিংয়ের কারণেই অনেক সুযোগ নষ্ট হয়েছে।'