• ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
  • " />

     

    এবার বর্ণবাদের শিকার হলেন হামজা চৌধুরী

    ফুটবলারদের বর্ণবাদের শিকার হওয়ার ঘটনা যেন বেড়েই চলেছে। সিরি আ-তে গত মৌসুমে মইসে কিনের পর এবার রোমেলু লুকাকু- ফুটবলে বর্ণবাদ ঠেকাতে যেন নতুন করেই ভাবতে হচ্ছে ইউরোপিয়ান লিগগুলোকে। কিন, লুকাকুদের পর এবার বর্ণবাদের শিকার হলেন লেস্টার সিটির বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মিডফিল্ডার হামজা চৌধুরী। অ্যানফিল্ডে লিভারপুলের বিপক্ষে ম্যাচের পর তাকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বর্ণবাদী মন্তব্য করেছেন কয়েকজন।

    হামজার বিরুদ্ধে এমন আচরণের বিরুদ্ধে ব্যবস্থাও নিয়েছে লেস্টার। 'ফক্স'দের এক মুখপাত্র বলেছেন, "এই যুগে এসেও এমন মন্তব্যে আমরা হতাশ। আমরা ব্যাপারটি নিয়ে পুলিশের কাছে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ দিয়েছি। ফুটবলে বর্ণবাদের কোনও স্থান নেই, এবং হামজার বিরুদ্ধে ওরকম মন্তব্য যারা করেছে; তাদের বিরুদ্ধে সম্ভাব্য সর্বোচ্চ ব্যবস্থা যাতে গ্রহণ করা হয়; সেটি নিশ্চিত করব আমরা।"

     

     

    অ্যানফিল্ডে লেস্টারের হয়ে বদলি হিসেবে নামার মিনিট তিনেক পর লিভারপুল ফরোয়ার্ড মোহামেদ সালাহকে ভয়ঙ্কর ট্যাকেল করে হলুদ কার্ড দেখেন হামজা। ট্যাকেলের পর খোঁড়াতে থাকা সালাহকে উঠিয়ে নেন ম্যানেজার ইয়ুর্গেন ক্লপ, ম্যাচের বাকি সময় অ্যানফিল্ডে লিভারপুল সমর্থকদের দুয়ো শুনতে হয়েছে তাকে। ম্যাচ শেষে হামজাকে একহাত নিয়েছেন ক্লপও, "আমি চাইনা তার (হামজা) কোনও সমস্যা হোক, কিন্তু মাঠে তার মাথা ঠান্ডা রাখা উচিত। এমন নয় যে সে এবারই প্রথম এরকম ট্যাকেল করেছে।"

    হামজার ট্যাকলিং নিয়ে সমালোচনা করা প্রথম ম্যানেজার অবশ্য ক্লপ নন। গত মাসে নিউক্যাসেল ইউনাইটেডের বিপক্ষে ম্যাচে এরকমই আরেক ট্যাকেলে 'ম্যাগপাই' মিডফিল্ডার ম্যাট রিচিকে আহত করেন তিনি। লিগামেন্টের গুরুতর ইনজুরি পড়েন রিচি, ম্যাচ শেষে হামজার সমালোচনা করেন স্টিভ ব্রুস, "এরকম ট্যাকেল অন্য সময় রিচির ক্যারিয়ারও শেষ করে দিত পারত। এগুলো একেবারেই গ্রহণযোগ্য নয়।"