• প্রীতি ম্যাচ
  • " />

     

    'অভিষেকেই এমন গোল পাওয়াটা স্বপ্নের মতো'

    আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে প্রথমবারের মতো মাঠে নেমেছিলেন লুকাস ওকাম্পোস। অভিষেক ম্যাচেই দলকে হারের মুখ থেকে ফিরিয়ে এনেছেন এই সেভিয়া মিডফিল্ডার। শেষ বাঁশি বাজার চার মিনিট আগে ওকাম্পোসের গোলেই জার্মানির সাথে ২-২ ব্যবধানে ড্র করে মাঠ ছেড়েছে আর্জেন্টিনা। ম্যাচ শেষে ওকাম্পোস বলছেন, অভিষেকেই দলকে এভাবে রক্ষা করতে পারাটা তার জন্য স্বপ্নের মতো। 

    দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে অ্যাঞ্জেল কোরেয়ার বদলি হিসেবে নামেন ওকাম্পোস। ৮৬ মিনিট পর্যন্ত ২-১ গোলে পিছিয়ে ছিল আর্জেন্টিনা। ঐ সময়ে প্রথম গোল করা লুকাস আলারিওর দারুণ এক পাসে বক্সের ভেতর বল পান ওকাম্পোস, ডান পায়ের ঠান্ডা মাথার শটে বল জালে জড়িয়ে অভিষেকেই পান গোল। 

    অভিষেকে পাওয়া গোল দলের হার এড়াতে সাহায্য করেছে, এতে দারুণ খুশি ওকাম্পোস, ‘এটা আসলে স্বপ্নের মতো। এভাবে গোল করতে পেরে আমি দারুণ খুশি। আমরা দ্বিতীয়ার্ধে খুব ভালো খেলেছি বলেই ম্যাচটা ড্র হয়েছে।’ 

    গোল উদযাপন করতে গিয়ে চিৎপটাং ওকাম্পোস 

     

    বদলি হিসেবে নেমে প্রথম গোল করা আলারিও বলছেন, জাতীয় দলে থাকার জন্য প্রতি মিনিটেই তাদের পরীক্ষা দিতে হবে, ‘ম্যাচটা যেভাবে শেষ হয়েছে সেটায় আমরা খুশি। আমি মাঠে নেমে নিজের সর্বোচ্চটা দেওয়ার চেষ্টা করেছি। আর্জেন্টিনার জার্সির জন্য আমাদের লড়াই করে যেতে হবে। প্রতি মিনিটেই প্রমাণ করতে হবে আমরা দলে খেলতে চাই। প্রথম গোলটা করে ও দ্বিতীয় গোলে অ্যাসিস্ট করতে পেরে আমি আনন্দিত।’ 

    এদিকে কোচ লিওনেল স্কালোনি বলছেন, প্রীতি ম্যাচের ফলাফলের চেয়ে দলের পারফরম্যান্সই তার কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ, ‘এরকম ম্যাচে ফলাফল নয়, পারফরম্যান্সটাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ। প্রথমার্ধে আমরা ভালো খেলিনি, অনেক ভুল করেছি, সেটারই সুযোগই জার্মানি নিয়েছে। তবে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হচ্ছে দ্বিতীয়ার্ধে আমরা ঘুরে দাঁড়িয়েছি। জার্মানি শারীরিকভাবে অনেক শক্তিশালী দল। দ্বিতীয়ার্ধে আমরাও সেভাবে ফুটবলার নামিয়েছি মাঠে।’