• ক্লিয়ার মেন অ-১৭ ফুটবল
  • " />

     

    নাটকীয় সমাপ্তিতে শেষ হাসি বগুড়ার পুলিশ লাইনস হাইস্কুলের

    ক্লিয়ার মেন অনূর্ধ্ব-১৭ স্কুল চ্যাম্পিয়নশিপের রোমাঞ্চকর এক ফাইনালে গত বুধবার টাঙ্গাইলের সুতী ভিএম পাইলট স্কুলকে সাডেন ডেথে ৬-৫ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বগুড়ার পুলিশ লাইনস স্কুল।

    নির্ধারিত সময়ের শেষে খেলায় ছিল ১-১ গোলের সমতা, খেলা গড়ায় ট্রাইবেকারে। সেখানেও শেষ হচ্ছিলো না ম্যাচ। নির্ধারিত ৫ শটেও তখন ৩-৩ সমতা। শেষ পর্যন্ত অষ্টম শটে টাঙ্গাইলের সুতী ভিএম পাইলট হাইস্কুলের তানভির আহমেদের শট ঠেকিয়ে গোলরক্ষক ফারহান শাহরিয়ারকে ঘিরে উল্লাসে ফেটে পড়ে বগুড়ার ছেলেরা।

    ম্যাচে সমান রোমাঞ্চ ছড়িয়েছে দুই দলই। আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণের মাঝে প্রথমে ১১ মিনিটের মাথায় এগিয়ে যায় বগুড়া পুলিশ লাইনস স্কুলই। ডান প্রান্ত থেকে আসা রাফিদ হাসানের ক্রসে নিখুঁতভাবে মাথা ছুঁয়ে দিতে ভুল করেননি তাসরিফ ইসলাম। সমতায় ফিরতে বেশি সময় নেয়নি টাঙ্গাইলের ছেলেরাও। খেলার ২৫ মিনিটে বক্সের ঠিক বাইরে ফ্রি-কিক পেয়েছিল তারা, মারুফ আহমেদের মাটি কামড়ানো শট প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডার ও গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে চলে যায় পোস্টে।

    দ্বিতীয়ার্ধেও আক্রমণ ও পাল্টা আক্রমণে ঠাসা ম্যাচে গোলের সুযোগ পেয়েছিল দুদলই, কাজে লাগাতে পারেনি কেউই। তারপর টাইব্রেকারে নাটকীয় সমাপ্তি। ম্যাচ শেষে পুলিশ লাইনস স্কুলের নবন শ্রেণীতে পড়ুয়া গোলরক্ষক ফারহান বলেছেন, চ্যাম্পিয়ন হওয়ার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী ছিলেন তারা।

    টুর্নামেন্টে ১০ গোল করে গোল্ডেন বুট জিতেছেন সুতী ভিএম পাইলট স্কুলের মারুফ আহমেদ, গোল্ডেন বলও গেছে তাদেরই স্কুলের মোহম্মদ সাগরের হাতে। সেরা গোলরক্ষকের পুরষ্কার জিতেছেন বগুড়া পুলিশ লাইনস স্কুলের ফারহান।

    চ্যাম্পিয়নদের হাতে পুরস্কার তুলে দিতে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন। উপভোগ্য ফাইনালের শেষে সফল আয়োজনের জন্য আয়োজকদের ধন্যবাদ দেন তিনি। এই টুর্নামেন্ট দিয়েই তৃণমূল থেকে প্রতিভাবান ফুটবলার বাছাই করার কাজটি সেরেছে বাফুফে। বাছাই করা ফুটবলাররা অনুশীলনের সুযোগ পাবে বাফুফে একাডেমিতে। এ ছাড়াও ৩৬ জন ফুটবলার অনুশীলনের সুযোগ পাবে বিকেএসপিতে। ওই আবাসিক ক্যাম্প শেষে চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত ৬ জন যাবে ইংল্যান্ডের ম্যানচেস্টার সিটিতে।

    এর আগে বিভাগীয় পর্যায়ে খুলনার চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলো চিরুলিয়া স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ঢাকা অঞ্চলের চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল কদমতলা পূর্ব বাসাবো স্কুল অ্যান্ড কলেজ, সিলেট অঞ্চলের চ্যাম্পিয়ন ফেইম একাডেমী, চট্টগ্রাম অঞ্চল থেকে চ্যাম্পিয়ন সানোয়ারা ইসলাম বয়েজ, রাজশাহী অঞ্চলের চ্যাম্পিয়ন বগুড়া পুলিশ লাইন হাই স্কুল, বরিশালের চ্যাম্পিয়ন বরিশাল ব্যাপটিস্ট মিশন হাই স্কুল, ময়মনসিংহ অঞ্চলের চ্যাম্পিয়ন পুলিশ লাইন স্কুল ও রংপুর অঞ্চলের চ্যাম্পিয়ন নীলফামারির সমির উদ্দিন স্কুল অ্যান্ড কলেজ।

    সারা দেশ থেকে ২৭২টির বেশি স্কুল অংশগ্রহণ করেছে এবারের টুর্নামেন্টে। সেরা ১৬টি স্কুল এরপর অংশ নিয়েছিল ঢাকায় ফাইনাল রাউন্ডে।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন