• এসএ গেমস
  • " />

     

    এসএ গেমসের ফাইনালে উঠতে কী করতে হবে বাংলাদেশকে

    এসএ গেমসে ভুটানের কাছে হার বাংলাদেশ ফুটবল দলকে কতোখানি ভোগাবে সেটা বোঝা যাবে আসলে টুর্নামেন্ট শেষেই। তবে আপাতত যে হারটা খেলোয়াড়দের মানসিকতার ওপর বড় প্রভাব ফেলেছে সেটা বোঝা গেছে মালদ্বীপের বিপক্ষে জামাল ভূঁইয়াদের পারফর্ম্যান্সের পর। এসএ গেমসের দুই ম্যাচ শেষেই তাই পদক ছাড়ার ফেরার শঙ্কা তৈরি হয়েছে বাংলাদেশ অলিম্পিক ফুটবল দলের। 

    তবে এখনও যেহেতু বাংলাদেশের হাতে দুই ম্যাচ রয়েছে তাই ফাইনালে ওঠার সম্ভাবনা একেবারে নিভে যায়নি বাংলাদেশের। সহজ হিসাব বাংলাদেশকে জিততে হবে পরের দুই ম্যাচ। এই দুই ম্যাচের প্রথমটি শ্রীলঙ্কা ও পরেরটি স্বাগতিক নেপালের বিপক্ষে। অবশ্য এর পরও নিশ্চিত হবে না বাংলাদেশের ফাইনাল খেলা। 



    দুই ম্যাচ শেষে ১ পয়েন্ট নিয়ে বাংলাদেশের অবস্থান একেবারে তলানিতে। আর ভুটান বাংলাদেশের পর হারিয়ে দিয়েছে মালদ্বীপকেও। অন্য ম্যাচে তারা নেপালের কাছে উড়ে গেছে ৪-০ তে। ৩ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে এখন ভুটান। নেপাল তাদের দ্বিতীয় ম্যাচে শেষ মুহুর্তে গোল খেয়ে পয়েন্ট হারিয়েছে শ্রীলঙ্কার কাছে। মালদ্বীপ ও শ্রীলঙ্কা নিজেদের খেলা দুই ম্যাচেই ড্র করেছে, দুই পয়েন্ট করে পেয়েছে তারা।  

    নেপালের ফাইনালে ওঠা একরকম নিশ্চিত হয়ে আছে শক্তির বিচারে। তবে বাংলাদেশ ও মালদ্বিপ তাদের পরের দুই ম্যাচ জিতে গেলে নেপাল বাদ পড়বে। ভুটান নিজেদের শেষ ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে দিলেই ফাইনাল নিশ্চিত করে ফেলবে। ভুটান হেরে গেলে আর বাংলাদেশ নিজেদের পরের দুই ম্যাচ জিতে গেলে শ্রীলঙ্কা ও ভুটানকে টপকে ফাইনালে উঠবে বাংলাদেশ।

    আপাতত, আগ-পিছ কিছু না ভাবলেও হচ্ছে তাই বাংলাদেশের। নিজেদের কাজ ঠিক ঠাক করে বাকিটা তাদের ছেড়ে দিতে হবে ভাগ্যের হাতে। শেষ দুই ম্যাচ জিতলে বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে ৭। 

    তবে বলা যতখানি কাজ তার চেয়েও কয়েক গুণ বেশি কঠিন। বাংলাদেশের শেষ দুই ম্যাচের পারফরম্যান্স তো এমন কিছুর আশার দেখাচ্ছেও না। ফাইনালে উঠতে তাই নিজেদের নাটকীয় পরিবর্তন দরকার বাংলাদেশের।   

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন