• ক্রিকেট, অন্যান্য
  • " />

     

    শান্ত-আফিফে নেপাল-শঙ্কা কাটিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ

    বাংলাদেশ অ-২৩ ১৫৫/৬, ২০ ওভার (শান্ত ৭৫*, আফিফ ৫২, পরশ ৩/১৫, এইরি ২/৩১) 
    নেপাল ১১১/৯, ২০ ওভার (জ্ঞানেন্দ্র ৪৩, তানভির ২/২০, সৌম্য ২/২০) 
    বাংলাদেশ অ-২৩ ৪৪ রানে জয়ী 


    নাজমুল হোসেন শান্ত ও আফিফ হোসেনের ফিফটির পর বোলারদের সমন্বিত পারফরম্যান্সে নেপালকে হারিয়ে এসএ গেমসের মেনস ক্রিকেটের ফাইনালে চলে গেছে বাংলাদেশ। আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ১৬ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে চাপেই পড়েছিল বাংলাদেশ, শান্ত-আফিফের ব্যাটিংয়ে ১৫৫ পর্যন্ত গিয়েছিল তারা শেষ পর্যন্ত। রানতাড়ায় নেপাল অধিনায়ক জ্ঞানেন্দ্র মাল্লার ৪৩ রানের ইনিংসকে সমর্থন জোগাতে পারেননি তেমন কেউ, ১১১ রানেই আটকে গেছে তারা। 

    আগের দুই ম্যাচের তুলনায় এবার বেশ চ্যালেঞ্জের মুখেই পড়তে হয়েছিল টসে জিতে আগে ব্যাটিংয়ে নামা বাংলাদেশকে। ৪ ওভারের মাঝেই ফিরেছেন তিন ব্যাটসম্যান- মোহাম্মদ নাঈম শেখ, সৌম্য সরকার ও সাইফ হাসান- তিনজনই শিকার পরশ খাড়কার। সৌম্য ও সাইফ ফিরেছেন ৩ বলের ব্যবধানে। ইয়াসির আলিকে নিয়ে প্রথমে চাপ আলগা করেছেন শান্ত,  তবে ইয়াসির ফিরেছেন ১৫ বলে ১৪ রান করেই।

    ৮ ওভারের মাঝে পরশের বোলিং শেষ হয়ে যাওয়ার পর নেপাল আর সেভাবে চেপে ধরতে পারেনি বাংলাদেশকে। শান্ত ও আফিফ তৃতীয় উইকেট জুটিতে যোগ করেছেন ৯৪ রান। শেষ ওভারে গিয়ে দীপেন্দ্র এইরির বলে বোল্ড হওয়ার আগে আফিফ করেছেন ২৮ বলে ৫২ রান, ৬ চার ও ১ ছয়ে। শান্ত অবশ্য অপরাজিত ছিলেন শেষ পর্যন্ত, ৬০ বলে ৪টি করে চার ও ছয়ে তিনি করেছেন ৭৫ রান। শেষ ৬ ওভারে ৭১ রান তুলেছিল বাংলাদেশ। 

    রানতাড়ায় শুরুতেই চাপে পড়েছিল নেপালও, ১৪ রানে তারা হারিয়েছিল ৩ উইকেট। পরশ ও পবন সাররাফকে ফিরিয়েছেন তানভির ইসলাম, আরিফ শেখের উইকেট নিয়েছেন সুমন খান। এইরিকে নিয়ে ৪র্থ উইকেটে ৩২ রান যোগ করেছিলেন জ্ঞানেন্দ্র, তবে এরপর আর কেউ সেভাবে সঙ্গ দিতে পারেননি তাকে। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে গেছে নেপাল। 

    ১৭তম ওভারে সমানসংখ্যক বলে ৪৩ রান করার পর সৌম্যর শিকার বনেছেন জ্ঞানেন্দ্র। শেষদিকে ১০ বলে ১১ রান খেলে অপরাজিত ছিলেন অবিনাশ বোহারা। তানভীর ছাড়া সুমন খান, সৌম্য ও মাহেদি হাসান- সবাই নিয়েছেন ২টি করে উইকেট। 

    এ ম্যাচ দিয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে ফাইনাল নিশ্চিত হয়েছে শ্রীলঙ্কারও। ব্রোঞ্জ ম্যাচের জন্য নেপালের প্রতিপক্ষ ঠিক হয়নি এখনও। গ্রুপপর্বে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ বাকি আছে এখনও বাংলাদেশের।