• ক্রিকেট, অন্যান্য
  • " />

     

    ফাইনালের আগে ফাইনালের প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কার কাছে উড়ে গেল বাংলাদেশ

    বাংলাদেশ অ-২৩ ১৫০/৬, ২০ ওভার (অঙ্কন ৪৪, ইয়াসির ৫১; ফার্নান্ডো ২/২৯)
    শ্রীলঙ্কা অ-২৩ ১৫১/১, ১৬.১ ওভার (নিসাঙ্কা ৬৭, ক্রুসপুল্লে ৭৩; মাহেদি ১/৪৪) 
    শ্রীলঙ্কা অ-২৩ ৯ উইকেটে জয়ী 


    টুর্নামেন্ট শুরুর আগে থেকে খাতা-কলমে বাংলাদেশকে চ্যালেঞ্জ জানানোর মতো দল ছিল এই শ্রীলঙ্কাই। ফাইনালেও তাদের বিপক্ষেই খেলতে হবে বাংলাদেশকে। তবে এসএ গেমসের মেনস ক্রিকেটে সোনার লড়াইয়ের আগে ‘পোশাকি ফাইনালে’ শ্রীলঙ্কার কাছে উড়ে গেছে বাংলাদেশ। পাথুম নিসাঙ্কা ও লাসিথ ক্রুসপুল্লের যথাক্রমে অপরাজিত ৬৭ ও ৭৩ রানের ইনিংসে বাংলাদেশের ১৫০ রান শ্রীলঙ্কা পেরিয়ে গেছে ৯ উইকেট ও ২৩ বল বাকি রেখেই। 

    ফাইনাল নিশ্চিত হওয়ার ফলে এ ম্যাচে বাংলাদেশ বিশ্রাম দিয়েছিল সৌম্য সরকার ও এর আগের ম্যাচগুলিতে অধিনায়কত্ব করা নাজমুল হোসেন শান্তকে। তবুও শ্রীলঙ্কার এই দলের চেয়ে জাতীয় দলের হয়ে আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতায় ‘এগিয়ে’ ছিল বাংলাদেশ। তবে সেটি কাজে আসেনি শেষ পর্যন্ত। 

    কীর্তিপুরে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে আগের ম্যাচের মতো শুরুতে চাপে পড়েছিল বাংলাদেশ। ২১ রানের মাঝেই ফিরেছিলেন তিন ব্যাটসম্যান- মোহাম্মদ নাঈম, সাইফ হাসান ও আগের ম্যাচে ফিফটি করা আফিফ হোসেন। চতুর্থ উইকেটে মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন ও ইয়াসির আলি রাব্বির ৮০ রানের জুটিতে সে চাপ একটু সামাল দিয়েছিল বাংলাদেশ। ৩৮ বলে ৪ চার ও ২ ছয়ে ৪৪ রান করা অঙ্কনকে ফিরিয়ে সে জুটি ভেঙেছিলেন শাম্মু আশান। 
     


    অঙ্কন মিস করলেও ফিফটি পেয়েছেন ইয়াসির, দিনে শ্রীলঙ্কার শীর্ষ বোলার আসিথা ফার্নান্ডোর বলে আউট হওয়ার আগে এই ডানহাতি করেছেন ৪৫ বলে ৫ চার ও ১ ছয়ে ৫১ রান। এরপর জাকির হাসানের ১৭ বলে ২০ রানে ভর করে ঠিক ১৫০ করে থেমেছে বাংলাদেশ। ফার্নান্ডো ২ উইকেট নিয়েছেন ২৯ রানে, ১টি করে উইকেট নিয়েছেন তিনজন- কাভিশকা আনজুলা, জেহান ড্যানিয়েল ও আশান। 

    ১৫০ রানের সম্বল নিয়ে দ্বিতীয় ওভারে ব্রেকথ্রু এনে দিয়েছিলেন মাহেদি হাসান, সে ওভারের প্রথম তিনটি বলই মাহেদি করেছিলেন নো। ফার্নান্ডোর ওই উইকেটই শেষ পর্যন্ত বোলিংয়ে এদিন একমাত্র প্রাপ্তি হয়ে থেকেছে বাংলাদেশের। 

    মাহেদির পরের ওভারে ক্রুসপুল্লের চার-ছয়-চারের ঝড়ে শ্রীলঙ্কা তুলেছিল ১৯ রান, এরপর আর পেছনে ফিরে তাকায়নি তারা। প্রথম ৬ ওভারেই উঠেছিল ৫৮ রান। ২৭ বলে ফিফটি পূর্ণ করেছেন ক্রুসপুল্লে, শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন ৪০ বলে ৭২ রানে, ৭ চারের সঙ্গে মেরেছেন ৪টি ছয়। তার তুলনায় একটু ‘ধীরগতির’ ছিলেন নিসাঙ্কা, সাইফকে ছয় মেরে ফিফটি পূরণ করেছেন তিনি ৩৯ বলে। শেষ পর্যন্ত তিনি অপরাজিত ছিলেন ৫২ বলে ৬৭ রান করে, ইনিংসে ৫টি চার ও ৩টি ছয় মেরেছেন তিনি।

    সোমবার বাংলাদেশ সময় দুপুর ১.১৫-তে ফাইনাল ম্যাচ। এর আগে ব্রোঞ্জের জন্য খেলবে নেপাল ও মালদ্বীপ।