• ক্রিকেট, অন্যান্য
  • " />

     

    চলে যাচ্ছেন বাংলাদেশের কোচিং স্টাফের সবচেয়ে পুরনো সদস্য

    জাতীয় দলের এখনকার কোচিং স্টাফের মধ্যে সবচেয়ে পুরাতন সদস্য ছিলেন তিনি। ২০১৪ সাল থেকে বাংলাদেশ জাতীয় দলের ট্রেনার হিসেবে কাজ করছেন। তবে এবার শ্রীলংকার মারিও ভিল্লাভারায়েনের বাংলাদেশ অধ্যায় শেষ হয়ে যাচ্ছে। আইপিএলের দল সানরাইজার্স হায়দরাবাদের সঙ্গে কাজ করার জন্য চাকরি ছেড়ে দিচ্ছেন এই স্ট্রেংথ ও কন্ডিশনিং কোচ।

    জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের ফিটনেস নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই কাজ করছেন মারিও। ২০১৪ সালের মে মাসে এসেছিলেন বাংলাদেশে। এ বছর হাথুরুসিংহের সঙ্গে বাংলাদেশে যোগ দেওয়া কয়েকজন শ্রীলংকান কোচিং স্টাফের একজন ছিলেন তিনি। এরপর বেশ কয়েকবার কোচ বদল হয়েছে বাংলাদেশের। ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং কোচ থেকে শুরু করে ফিজিও পর্যন্ত কয়েকবার বদলেছে, তবে থেকে গেছেন মারিও। এবার আইপিএলে সানরাইজার্স থেকে পাওয়া প্রস্তাবের পর সিদ্ধান্ত দিয়েছেন বাংলাদেশের দায়িত্ব ছেড়ে দেওয়ার। এর মধ্যেই নিশ্চিত করেছেন ক্রিকবাজকে।

    ক্রিকবাজের বরাতে মারিও বলেছেন, বাংলাদেশ দলে তিনি থাকতেই চেয়েছিলেন। আইপিএলের সময় এক মাস ছুটি চেয়েছিলেন। কিন্তু সেটা না পাওয়ায় কাজ ছেড়ে দিচ্ছেন। বিসিবি প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরীও নিশ্চিত করেছেন, মারিও আইপিএলের সময় জাতীয় দল থেকে ছুটি চেয়েছিলেন। কিন্তু ওই সময় বাংলাদেশের আয়ারল্যান্ড সফর থাকায় তাকে ছুটি দিতে পারেনি বিসিবি।  মারিওর সঙ্গে তিন বছর চুক্তি আছে বিসিবির, সে অনুযায়ী জাতীয় দলের খেলার সময় তাকে ছুটি দেওয়ার অনুমতি নেই বলে জানিয়েছেন নিজামউদ্দিন চৌধুরী। আপাতত তাই চলেই যেতে হচ্ছে মারিওকে।