• ক্রিকেট, অন্যান্য
  • " />

     

    অস্ট্রেলিয়ার বর্ষসেরা ক্রিকেটার হলেন ওয়ার্নার

     

    বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারিতে প্রায় এক বছর ক্রিকেট থেকে দূরে ছিলেন অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার। কিন্তু গত বছরের জুনে বিশ্বকাপ দিয়ে মাঠে ফেরার পর থেকেই ব্যাট হাতে নিয়মিত আলো ছড়াচ্ছেন এই অজি। অস্ট্রেলিয়ার বর্ষসেরা ক্রিকেটারের অ্যালান বোর্ডার পদক পেয়ে সেটিরই পুরস্কার পেলেন। মেলবোর্নে আজ অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট অ্যাওয়ার্ডস অনুষ্ঠানে ওয়ার্নারের হাতে এই পুরস্কার তুলে দেয়া হয়।

    বর্ষসেরার সঙ্গে বছরের সেরা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটারের পুরস্কারটিও ওয়ার্নারের হাতেই উঠেছে। আর বর্ষসেরা ওয়ানডে ক্রিকেটার হয়েছেন ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ এবং সেরা টেস্ট ক্রিকেটারের পদক পেয়েছেন তরুণ মার্নাস লাবু্শেইন। আর মেয়েদের বর্ষসেরা ক্রিকেটারের বেলিন্ডা ক্লার্ক পদক জিতেছেন অ্যালিস পেরি।

    ২০১৯ এর জানুয়ারি থেকে ২০২০ এর জানুয়ারি পর্যন্ত সময়ে ক্রিকেটারদের পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া প্রতি বছর এই পুরস্কার দিয়ে থাকে। এই সময়টাতে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে সব ফরম্যাট মিলিয়ে সবচেয়ে বেশি ১৮১৫ রান করেছেন ওয়ার্নার। এর মাঝে অ্যাডিলেডে পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট ক্যারিয়ার সেরা ৩৩৫ রান করেছিলেন তিনি। ২০১৬ ও ২০১৭ সালেও টানা দুই বছর বর্ষসেরা হয়েছিলেন ওয়ার্নার।

    পুরস্কার পেয়ে বেশ আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন ওয়ার্নার, “আমি এর জন্য প্রস্তুত ছিলাম না। সময়টা অনেক কঠিন ছিল। কোথা থেকে শুরু করব বুঝে উঠতে পারছি না। কিন্তু যেমনটা আমি আগেই বলেছি, সুযোগ দেয়ার জন্য ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াকে ধন্যবাদ। আপনারা যা করেছেন, তাঁর জন্য আমি আপনাদের কাছে কৃতজ্ঞ।“

    পুরস্কার গ্রহণ করার সময় নিষেধাজ্ঞার পর ফেলে আসা সময়টা মনে পড়ে যাচ্ছে এই ওপেনারের , “ফিরে আসাটা দারুণ ছিল। বিশ্বকাপে আমাদের আরো ভালো করা উচিৎ ছিল। আমি খুব ভালো খেলতে না পারলেও অ্যাশেজ জিতে নেয়াটাও দারুণ ছিল। তবে আমার চেষ্টার কোনো কমতি ছিল না। যদিও ফিরে এসেই দারুণ একটি গ্রীষ্ম কাটিয়েছি। আশা করি, খেলার মাধ্যমে আপনাদের মুখে হাসি নিয়ে আসতে পেরেছি।“

     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন