• লা লিগা
  • " />

     

    রোনালদো-দিবালায় ছুটছে জুভেন্টাস

    ফুলটাইম
    জেনোয়া ১-৩ জুভেন্টাস


    এই ম্যাচের সেরা গোল বাছাই করতে বললে আপনি দ্বিধা-দ্বন্দে পড়ে যেতে পারেন। পাউলো দিবালা, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো- দুইজনই সিরি আ ফেরার পর টানা তৃতীয় ম্যাচে গোল করেছেন। নতুন করে যোগ হয়েছেন ডগলাস কস্তা। এই তিনজনই করেছেন দেখার মতো তিন গোল। একজন বল জড়িয়েছেন বটম কর্নারে, আরেকজন জালের মাঝামাঝি, শেষজন টপ কর্নারে- বাদ যায়নি কিছুই! জেনোয়া শেষে যে এক গোল শোধ দিয়েছে সেটাও অবশ্য কম যায় না! সিরি আ-তে জেনোয়ার মাঠে জুভেন্টাসের ম্যাচটাই হয়েছে দারুণ সব গোলের। গোলের খেলায় দুর্দান্ত সব গোল হয়েছে। আর ২৯ ম্যাচ শেষেও পয়েন্ট টেবিলের দুইয়ে থাকা লাৎসিওর সঙ্গে ৪ পয়েন্ট ব্যবধান বজায় রেখেছে বিয়াঙ্কোনেরিরা। 

    লেচ্চের বিপক্ষে ম্যাচের মতোই জেনোয়াতেও প্রথম গোল পেতে দ্বিতীয়ার্ধ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়েছে জুভেন্টাসকে। অবশ্য গোল যে হবে সেটা বোঝা যাচ্ছিল আগে থেকেই। প্রথমার্ধে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো দুইবার গোলে শট করেও জেনোয়া গোলরক্ষকের দারুণ সেভের কাছে পরাস্ত হয়েছিলেন। এর ভেতর প্রথমবার রোনালদো শট নিয়েছিলেন ২৫ গজ দূর থেকে, পরেরবার বক্সের ভেতর ডানপাশ থেকে কাছের পোস্টে। দুইবারই সাবেক জুভেন্টাস গোলরক্ষক মাতেয়া পেরিন ফিস্ট করে উঠিয়ে দিয়েছেন বল।

     


    বিরতির ৫ মিনিট পরই আরও একবার গোল করেন দিবালা। বক্সের ভেতর সলো রান নিয়ে দুই ডিফেন্ডার ছিটকে ফেলে বাম পায়ের বাঁকানো শটে দূরের পোস্টে বল জড়ান আর্জেন্টাইন। চোখ ধাঁধানো গোলের গল্প অবশ্য তখন সবে শুরু।

    ৫৬ মিনিটে ২৫ গজ দূর থেকে রোনালদো মারলেন গোলার মতো শট। মাঝবৃত্তের কাছাকাছি জায়গায় বল পেয়ে দৌড়ে গিয়েছিলেন জেনোয়ার গোলের দিকে। এরপর ডান পায়ে নেওয়া রোনালদোর শট জড়িয়েছে জালে। তাতে মৌসুমের ২৪ তম গোল পাওয়া হয়ে গেছে রোনালদোর। রোনলদোর দারুণ ওই গোলের পরই স্পেনে লিওনেল মেসিও পানেনকায় করেছেন আরেক চমক জাগানো গোল। তাতে ক্যারিয়ারের ৭০০ তম গোলের মাইলফলকও ছুঁয়েছেন তিনি। রোনালদো অবশ্য আগেই আছেন এলিট প্যানেলে। জেনোয়ার বিপক্ষে স্কোরশিটে নাম পর তার গোলসংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭২৬টি।

    ফ্রেডেরিকো বের্নাদেস্কির বদলি হয়ে মাঠে নেমে এরপর ব্রাজিলিয়ান ডগলাস কস্তাও আলো ছড়িয়েছেন। বক্সের ঠিক বাইরে থেকে বাম পায়ের বাঁকানো শটে কস্তা বল জড়িয়েছেন টপ কর্নারে।

    জয় নিশ্চিত জেতে মাউরিসিও সারি রোনালদোকে তুলে নেন ৭৪ মিনিটে। এরপর অবশ্য গোল খেয়ে বসে জুভেন্টাস। আন্দ্রেয়া পিনামন্তি কঠিন অ্যাঙ্গেল থেকে লক্ষ্যভেদ করেন জোরালো শটে। জুনে ইতালিতে ফুটবল ফেরার পর পঞ্চম ম্যাচে এসে তাতে ক্লিনশিট হাতছাড়া হয়েছে জুভেন্টাসের।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন