• বিশ্বকাপ বাছাই
  • " />

     

    বাংলাদেশ দলে করোনার থাবা : আগেরদিনের ৪ জনের সঙ্গে নতুন আরও ৭ জন পজিটিভ

    দ্বিতীয় দিনের স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর আরও ৭ জন খেলোয়াড় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবর জানিয়েছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন। আবাহনী লিমিটেডের ৩ জন ও বসুন্ধরা কিংসের ৪ জন খেলোয়াড় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন করোনাভাইরাসে। এই নিয়ে ২৫ জন খেলোয়াড়ের ভেতর মোট ১১ জনের শরীরেই করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেল।  

    প্রথম দিনের পর দ্বিতীয় দিনেও ১২ জনের শরীরে করোনাভাইরাস পরীক্ষা করা হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে। আগেরদিন ১৩ (ব্যক্তিগত উদ্যোগে পরীক্ষা করিয়েছিলেন বিশ্বনাথ ঘোষ) জনের ভেতর মোট ৪ জনের করোনা পরীক্ষার ফলই এসেছিল পজিটিভ। এবার তাদের সঙ্গে আজ যোগ হয়েছেন আবাহনীর সোহেল রানা, টুটুল হোসেন বাদশা, গোলরক্ষক শহীদুল আলম সোহেল, বসুন্ধরা কিংসের আনিসুর রহমান জিকো, মোহাম্মদ ইব্রাহিম, রবিউল হাসান ও সুশান্ত ত্রিপুরা।

    বিশ্বকাপ ও এশিয়া কাপ বাছাইয়ের ম্যাচের জন্য আগস্টের ৭ তারিখ থেকে আবাসিক ক্যাম্প শুরু হওয়ার কথা বাংলাদেশ দলের। এর আগে পালাক্রমে খেলোয়াড়দের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করাচ্ছে বাফুফে। প্রথমদিন খেলোয়াড় ও স্টাফসহ মোট ২০ জনের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করানো হয়েছিল। আগামীকাল শেষ ১২ জনের শরীরে করা হবে এই পরীক্ষা। 

    অক্টোবরে বাছাইপর্বে আফগানিস্তান ও কাতারের ম্যাচের জন্য মোট ৩৬ সদস্যের বাংলাদেশ দল ঘোষণা করেছিলেন কোচ জেমি ডে। অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া ও তারিক কাজী দলের সঙ্গে যোগ দেবেন পরে। বসুন্ধরার মতিন মিয়া, মাসুক মিয়া জনি ও আতিকুর রহমান ফাহাদও চোট থেকে সেরে ওঠার প্রক্রিয়ায় থাকায় এই মুহুর্তে দলের সঙ্গে যোগ দেবেন না। এর সঙ্গে করোনায় আক্রান্ত ১১ জন খেলোয়াড়ও যোগ হয়েছেন। আপাতত তাই অনুশীলন ক্যাম্পও পড়ে গেছে হুমকির মুখে।

    ১৬ আগস্ট ইংল্যান্ড থেকে বাংলাদেশের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেওয়ার কথা জেমি ডের। প্রথম দিন ১৩ জনের ভেতর ৪ জনের শরীরের করোনাভাইরাসের উপস্থিতি নিশ্চিত হওয়ার পর জেমি ডে এই সংখ্যা আরও বাড়ার আশঙ্কার কথা জানিয়েছিলেন প্যাভিলিয়নকে। কোচের মতে এই মুহুর্তে ক্যাম্প শুরু করাটাই আসল চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

    দ্বিতীয় দফায় পরীক্ষার ফল পাওয়ার আগেই অবশ্য ন্যাশনাল টিমস কমিটির চেয়ারম্যান কাজী নাবিল আহমেদ দলে নতুনদের সংযোজনের ইঙ্গিত দিয়েছেন, "যারা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত তাদের সুযোগ শেষ হয়ে যায়নি। তবে ক্যাম্পের জন্য দরকার হলে নতুন করে খেলোয়াড় নেওয়া হবে। সে ব্যাপারে আগামী দুই-চারদিনের ভেতরই সিদ্ধান্ত জানানো হবে।" 
     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন