• অস্ট্রেলিয়ার ইংল্যান্ড সফর ২০২০
  • " />

     

    শঙ্কা কাটিয়ে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ফিরতে পারেন স্মিথ-স্টার্ক

    অনুশীলনে মাথায় আঘাত পেয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার স্টিভেন স্মিথ। তাই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে তার খেলা নিয়ে সংশয় ছিল। তবে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া জানিয়েছে, শনিবার দ্বিতীয় কনকাশন পরীক্ষায় কোনো সমস্যা শনাক্ত না হওয়ায় সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে তার খেলার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। বৃহস্পতিবার নেটে ব্যাটিং অনুশীলনের সময় মাথায় আঘাত পাওয়ায় শুক্রবার তিন ওয়ানডে সিরিজের প্রথমটিতে খেলেননি তিনি, তবে সেটি ছিল সতর্কতা। 

    মাথায় আঘাত পাওয়ার পরপরই তার ‘কনকাশন’ পরীক্ষা করা হয়। মাথায় আঘাত পাওয়ায় ‘সাবধানতা বশত’ তাকে প্রথম ওয়ানডেতে খেলানো হয়নি বলে জানিয়েছিলেন অজি অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ।
     


    নেটে অস্ট্রেলিয়ার এক কোচিং স্টাফ সদস্যের সাইড-আর্মের থ্রো-ডাউন মোকাবিলা করতে গিয়েই চোটে পড়েছেন স্মিথ। ইংল্যান্ডে অস্ট্রেলিয়ার আগের সফরেও মাথায় আঘাত পেয়েছিলেন টেস্ট ক্রিকেটের ১ নম্বর ব্যাটসম্যান স্মিথ, জফরা আর্চারের ৯২ মাইল গতির বল তার ঘাড়ে আঘাত করেছিল সেবার। মেডিকেল টেস্ট করিয়ে ঘন্টাখানেক পর আবারও ব্যাট হাতে লর্ডস টেস্টে মাঠে নেমছিলেন তিনি। তবে সেদিন রাতে কনকাশনের লক্ষণের কথা টিম ম্যানেজমেন্টকে জানান স্মিথ। পরে সেই টেস্টে আর মাঠে নামতে পারেননি, পরের টেস্ট থেকেও ছিটকে গিয়েছিলে অস্ট্রেলিয়ার সাবেক এই অধিনায়ক।

    আর তাই এবার মাথার চোট নিয়ে একটু বেশিই সতর্ক অস্ট্রেলিয়া, তেমনটাই জানালেন ফিঞ্চ, “বুধবার অনুশীলনে মাথায় আঘাত পেয়েছে স্মিথ। সাবধানতা বশত তাকে প্রথম ম্যাচে খেলানো হয়নি।”

    স্মিথ ছাড়া পেসার মিচেল স্টার্কেরও দ্বিতীয় ওয়ানডেতে খেলা অনিশ্চিত ছিল। প্রথম ওয়ানডেতে কুঁচকির চোট নিয়েও পুরো ১০ ওভারই বোলিং করেছিলেন তিনি। তবে তার সেই চোটও সেরে উঠছে বলে জানিয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।

    ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ ২-১ ব্যবধানে হেরেছিল অস্ট্রেলিয়া। তবে প্রথম ম্যাচ ১৯ রানে জিতে নিয়ে ওয়ানডে সিরিজে ভালো শুরু করেছেন ফিঞ্চরা। এর আগে শেষ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ওয়ানডেতে মুখোমুখি হয়েছিল দুই দল। 

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন