• বুন্দেসলিগা
  • " />

     

    বুন্দেসলিগার গ্যালারিতে ফিরছে দর্শক

    বুন্দেসলিগার নতুন মৌসুম শুরু হচ্ছে ১৯ সেপ্টেম্বর। তার আগেই বুন্দেসলিগা ভক্তদের জন্য দারুণ সুখবর দিয়েছে জার্মান ফুটবল ফেডারেশন (ডিএফবি)। করোনাভাইরাসের মাঝেই বুন্দেসলিগার গ্যালারিতে ফিরছেন দর্শক।

    মঙ্গলবার জার্মানি ফেডারেল স্টেট চ্যান্সেলারিগুলোর মাঝে ভার্চুয়াল বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। যে দলের মাঠে খেলা অনুষ্ঠিত হবে শুধু সেই ক্লাবের সমর্থকরাই মাঠে প্রবেশ করতে পারবেন, কোনো অ্যাওয়ে ফ্যান থাকবে না। আর ক্লাবগুলো দর্শক ধারণক্ষমতার ২০ ভাগ ব্যবহার করতে পারবে। আর খেলা শুরু হওয়ার পর এক সপ্তাহ বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করবে ডিএফবি। যে শহরে খেলা হচ্ছে, সেখানে যদি লাখে ৩৫ জনের বেশি করোনা রোগী পাওয়া যায়, তাহলে সে ক্লাবকে ফাঁকা মাঠে ম্যাচ আয়োজন করতে হবে।


    এছাড়া যেসব দর্শক মাঠে খেলা দেখতে আসবেন, তাদের আগেই নিজেদের যোগাযোগের বৃত্তান্ত জমা দিতে হবে নির্ধারিত কর্তৃপক্ষের কাছে। যাতে কেউ আক্রান্ত হলে তার সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের সহজেই চিহ্নিত করা যায়। এছাড়া মাঠে এবং মাঠের বাইরে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা নিশ্চিত করতে পর্যাপ্ত পদক্ষেপ নেবে ক্লাবগুলো।

    সোমবার জার্মান কাপে ডায়নামো ড্রেসডেন এবং হামবুর্গের ম্যাচটি ১০ হাজার দর্শক মাঠে বসে উপভোগ করেছেন। আর ডুইসবার্গের মাঠে বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের প্রীতি ম্যাচেও প্রায় তিনশ দর্শক গ্যালারিতে উপস্থিত ছিলেন। এদিকে গ্যালারিতে দর্শক ফেরার অনুমতি দেওয়া হলেও আপাতত জার্মানির বিভিন্ন ক্লাবের ‘আলট্রা’ ফ্যানরা মাঠে না আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সব প্রটোকল মেনে খেলা দেখার বিষয়টি কোনোভাবেই ফুটবলের ফ্যান কালচারের সঙ্গে যায় না বলে মত তাদের।

    ফ্রেঞ্চ লিগ আঁ-তে সীমিত আকারে দর্শকরা গ্যালারিতে ফিরেছেন। প্রিমিয়ার লিগ এবং সিরি আ এখনো মাঠে দর্শক ফেরানোর ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি। এদিকে বিশেষজ্ঞরা ইউরোপে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় তরঙ্গের (ওয়েভ) হুঁশিয়ারি দিচ্ছেন।

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন