• ওয়েস্ট ইন্ডিজ-ভারত
  • " />

     

    এবার টেন্ডুলকারকেও ছাড়িয়ে গেলেন কোহলি

    হেরে গেলে সিরিজ ড্র করতে হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে, এই ছিল সমীকরণ। সিরিজের আগের দুই ম্যাচে নিজেকে একদমই চেনাতে পারেননি। তবে বিরাট কোহলির নিজের সেরাটা জমিয়ে রেখেছিলেন শেষ ম্যাচের জন্যই। দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি সিরিজটা নিজেদের করে নিলেন ভারত অধিনায়ক। ছাড়িয়ে গেলেন শচীন টেন্ডুলকারের প্রায় ধরাছোঁয়ার বাইরে চলে যাওয়া একটা রেকর্ডও। 


    রান তাড়া করায় নিজেকে অন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন আজেই। বয়স মাত্র ২৮, কোহলির এর মধ্যেই সেঞ্চুরি হয়ে গেছে ২৮টি। হাতছানি দিচ্ছে পন্টিংয়ের ৩০টি সেঞ্চুরি কীর্তি। যেভাবে এগুচ্ছেন, সবার ওপরে থাকা টেন্ডুলকারের ৪৯ সেঞ্চুরির চূড়াও খুব দূরে নয়।  তবে পূর্বসূরিকে আরেকটা দিকে ছাড়িয়ে যেতে অতদূর অপেক্ষা করতে হয়নি কোহলির। 


    পরে ব্যাট করে এতোদিন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি ১৭টি সেঞ্চুরি ছিল টেন্ডুলকারের। আর কোহলির রান তাড়া করে নিজের ১৮তম সেঞ্চুরি করলেন। ক্যারিয়ার গড় ৫৪.৬৮; কিন্তু সফল রান তাড়ায় সেটি প্রায় অবিশ্বাস্য, ৯৭.৯৭।


    কাল স্যাবাইনা পার্কে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে অবশ্য সেঞ্চুরি পাওয়াটাই কোহলির কাছে অভাবিত হওয়ার কথা। ২০৫ রানের লক্ষ্য এমনিতেই তো বেশ ছোট। তবে প্রথম ওভারেই ধাওয়ান ফিরে যাওয়ার পর নামতে হয় কোহলিকে। এরপর আর কোনো সুযোগই দেননি প্রতিপক্ষকে, অজিঙ্কা রাহানেকে নিয়ে ম্যাচটা নিয়ে গেছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ধরাছোঁয়ার বাইরে। তবে নিজের ব্যক্তিগত কীর্তি একদমই বড় করে দেখছেন না ভারত অধিনায়ক, 'নিজের পরিসংখ্যাণ বা রেকর্ড নিয়ে আমি মাথা ঘামাচ্ছি না। দলের জন্য কী করতে পেরেছি সেটাই আমার কাছে বড়।' 

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন