• ওয়েস্ট ইন্ডিজ-ভারত
  • " />

     

    সেই লুইসেই আবারও লন্ডভন্ড ভারত

    ভারত ১৯০/৬, ২০ ওভার (কার্তিক ৪৮, কোহলি ৩৯, পান্ট ৩৮, টেইলর ২/৩১, উইলিয়ামস ২/৪২, স্যামুয়েলস ১/৩২)

    ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৯৪/১, ১৮.৩ ওভার (লুইস ১২৫*, স্যামুয়েলস ৩৬*, গেইল ১৮, যাদব ১/৩৪)

    ফলঃ ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৯ উইকেটে জয়ী 


    ‘আমি অনেক ছয় মেরেছি। তার মতো অনেক বড় বড়।’ ক্রিস গেইলকে কেন নিজের পরামর্শক হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন, এমন প্রশ্নের জবাবে বলেছিলেন এলভিন লুইস। ক্রিস গেইল, পছন্দটা খারাপ কী! সেই গেইল অনেকদিন পর ফিরলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে। ২০ বলে করলেন ১৮ রান, স্ট্রাইক রেট ৯০। ‘অ’গেইলসুলভ ব্যাপার-স্যাপার। তাতে কি! লুইস তো আছেন। স্যাবাইনা পার্কের সব আলো যে কেড়ে নিবেন গেইলের শিষ্য লুইসই। নাম বসাবেন গেইলের পাশেই! 

     

    ২৪ বলে ফিফটি, ১৩ ইনিংসের ক্যারিয়ারে দ্রুততম লুইসের। শেষ যেবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে খেলেছিল ভারত, লুইস ফিফটি করেছিলেন ২৫ বলে। সেদিন সেঞ্চুরি করেছিলেন, করলেন আজও। থামলেন ৬২ বলে ১২৫ রান করে। ১২টা ছয়, ৬টা চার। লুইস থামলেন বলাটা আসলে ঠিক না, লুইসকে থামতে হলো! নয় বল বাকি থাকতেই যে ভারতের ১৯০ রানের বাধা টপকে গেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, নয় উইকেটে বাকি রেখেই। জিতে গেছে একমাত্র টি-টোয়েন্টিও। গেইল ও ব্রেন্ডন ম্যাককালামের সঙ্গে লুইসই এখন টি-টোয়েন্টিতে দুইটি করে সেঞ্চুরির মালিক। 

     

    ওদিক থেকে গেইল ও স্যামুয়েলস যেন উপভোগ করছিলেন ‘লুইস-শো’। দুজন মিলে খেলেছেন ৪৯ বল, করেছেন ৫৪ রান। ‘খেল খতম’ তাতেই। লুইসের ইনিংসে অবশ্য খানিকটা অবদান আছে ভারতীয় ফিল্ডারদেরও। ৪৭ ও ৫৫ রানে দুইবার লুইসের ক্যাচ ফেলেছেন তারা। মাহেন্দ্র সিং ধোনি মিস করেছেন স্টাম্পিংয়ের সুযোগও। 

     

    ম্যাচের প্রথমভাগে অবশ্য ভারত হাতছাড়া করেছে আরও বড় ইনিংসের সুযোগ। ৫.৩ ওভারেই কোহলি-ধাওয়ান মিলে তুলে ফেলেছিলেন ৬৪ রান। দুজনই ফিরেছেন একই ওভারে। এরপর রিসাভ পান্ট ও দীনেশ কার্তিকের পালা। হবো হবো করেও যেন অভিষেকটা হচ্ছিল না পান্টের। ওয়ানডে স্কোয়াডে ছিলেন, সুযোগই পেলেন না। সুযোগ এলো টি-টোয়েন্টিতে। সেই তিনিই রানের জন্য রীতিমতো সংগ্রাম করলেন! অথচ সাত বছর পর আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি খেলতে নামা কার্তিকও ছিলেন বেশ স্বাচ্ছন্দ্য। ২৯ বলে করেছেন ৪৮, পান্ট ৩৫ বল খেলে করতে পেরেছেন ৩৮। জাদেজার ৮ বলে ১৩ বা অশ্বিনের ৭ বলে ১১-তে ১৯০ পর্যন্ত যেতে পেরেছে ভারত, শেষ ছয় ওভারে হয়েছে মাত্র চারটি বাউন্ডারি! 

     

    এ নিয়ে তিনবার প্রথম ইনিংসে ১৯০ বা এর বেশি রান করেও হারলো ভারত। এ রেকর্ডে তাদের ভাগিদার শুধু দক্ষিণ আফ্রিকা। শেষ ভারত এভাবে হেরেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে। আরও নির্দিষ্ট করে বললে, লুইসের কাছে। 

     

    আজ হারলো আবার! 

     

    প্রিয় প্যাভিলিয়ন পাঠক, 

    কোভিড-১৯ মহামারি বিশ্বের আরও অনেক কিছুর মতো অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ক্রীড়াঙ্গনকে। পরিবর্তিত এই পরিস্থিতিতে নতুন এক সংকটের মুখোমুখি হয়েছি আমরাও। প্যাভিলিয়নের নিয়মিত পাঠক এবং শুভানুধ্যায়ী হিসেবে আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ানোর। আপনার ছোট বা বড় যেকোনো রকম আর্থিক অনুদান আমাদের এই কঠিন সময়ে মূল্যবান অবদান রাখবে।

    ধন্যবাদান্তে,
    প্যাভিলিয়ন