• বাংলাদেশের নিউজিল্যান্ড সফর
  • " />

     

    • বাংলাদেশের নিউজিল্যান্ড সফর

    নিউজিল্যান্ড সিরিজ থেকে ছিটকে গেলেন সাকিব?

    বিপিএলের আরও একটি ফাইনালে হেরে যাওয়ার দুঃস্মৃতিটা তাজা এখনো। তবে তার চেয়েও অনেক বড় একটা দুঃসংবাদ পেলেন সাকিব আল হাসান। কাল বিপিএল ফাইনালে ব্যাটিং করতে যাওয়ার সময় বাঁহাতের অনামিকায় ব্যথা পেয়েছেন, পরে এক্সরে করতে গিয়ে চিড় ধরা পড়েছে সেখানে। আপাতত যদ্দুর জানা যাচ্ছে, নিউজিল্যান্ড সফরে ওয়ানডেতে তো বটেই, টেস্টেও সাকিবকে পাওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ।

    ঘটনাটা ঘটেছে একাদশ ওভারেই। কুমিল্লার থিসারা পেরেরার পঞ্চম বলটা সাকিবের গ্লাভসে লেগে ফাইন লেগে যায়, এক রানও হয়। পরের ওভারের প্রথম বলেই অবশ্য ওয়াহাব রিয়াজকে পুল করতে গিয়ে ক্যাচ তুলে দেন সাকিব। তখন অবশ্য বোঝা যায়নি চোটটা কেমন। ম্যাচ শেষে এক্সরে করার পর পাওয়া গেছে দুঃসংবাদ। আঙুলে চিড় ধরার জন্য অন্তত ২০-২৫ দিন মাঠের বাইরে থাকতে হবে সাকিবকে। যার মানে নিউজিল্যান্ডের সফরের ওয়ানডে তো বটেই, প্রথম টেস্টেও খেলা হচ্ছে না নিশ্চিতভাবেই। দ্বিতীয় ও তৃতীয় টেস্টও শেষ পর্যন্ত খেলতে পারবেন কি না, সেটি নিয়ে আছে সংশয়।

    বিসিবি চিকিৎসক ডা দেবাশীষ চৌধুরী নিশ্চিত করেছেন, ‘সাকিবের বাঁ হাতের অনামিকায় চিড় ধরা পড়েছে। তিন সপ্তাহ ওই আঙুলে কোনো নড়াচড়া করা যাবে না।’ তিন সপ্তাহ পর অবশ্য নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে বাংলাদেশের দ্বিতীয় টেস্ট শুরু হওয়ার কথা। ওয়েলিংটনে সেই টেস্ট হবে ৮ মার্চ। এরপর ১৬ মার্চ ক্রাইস্টচার্চে শেষ টেস্ট খেলবে বাংলাদেশ। সাকিবকে পাওয়ার বাস্তব আশা হয়তো থাকছে ওই টেস্টেই।

    চোটের জন্য সখ্য গত বছরেরও বেশি সময় ধরে নিয়মিত হয়ে গেছে সাকিবের। গত বছরের জানুয়ারিতে ত্রিদেশীয় সিরিজে হাতে পাওয়া চোটে খেলতে পারেননি মার্চ পর্যন্ত। এরপর এশিয়া কাপে ফিরে ওই চোটে আবার ভুগেছেন, ছিটকে গেছেন ফাইনালের আগে। অনেক জল ঘোলার পর শেষ পর্যন্ত বাঁ হাতের কড়ে আঙুলে অস্ত্রোপচার হয়নি। এবার চোট পেলেন বাঁ হাতেরই অনামিকায়।

    সর্বশেষ নিউজিল্যান্ড সিরিজেই ডাবল সেঞ্চুরি ছিল সাকিবের। এবার অন্তত প্রথম টেস্টে তাঁর অনুপস্থিতিতে অন্য কাউকে করতে হবে অধিনায়কত্ব। তবে সেটি কে হবেন, বা সাকিবের বিকল্প হিসেবে নিউজিল্যান্ড কে যাচ্ছেন সেটা এখনো নিশ্চিত করেনি বিসিবি।