• ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯
  • " />

     

    • ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯

    ধোনিকে দলে নিতে চান উইলিয়ামসন

    ওল্ড ট্রাফোর্ডের পুরোটা জুড়েই ছিল ভারতীয় সমর্থকদের দাপট। হাতে গোনা কিছু নিউজিল্যান্ড সমর্থকই শুধু ম্যাচজুড়ে কেন উইলিয়ামসনদের পাশে থেকেছেন। রোমাঞ্চকর এক সেমিতে ভারতকে হারিয়ে টানা দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠেছে কিউইরা। ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনে উইলিয়ামসন মজা করে বলেছেন, ফাইনালে ভারতের ১৫০ কোটি মানুষ তাদের সমর্থন জানালে মন্দ হবে না। সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে কিউই অধিনায়ক আরও বলেন, সুযোগ থাকলে মহেন্দ্র সিং ধোনিকে নিজের দলে রাখতেন তিনি। 

    আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের অধিনায়ক উইলিয়ামসন, ভারতে তাঁর ভক্তও আছেন অনেক। উইলিয়ামসনের আশা, ফাইনালে ভারতের সমর্থকরা নিউজিল্যান্ডের পক্ষেই থাকবে, ‘আশা করি ভারতের মানুষ আজকের ম্যাচের পর খুব বেশি রেগে নেই! ক্রিকেট নিয়ে ভারতীয় উন্মাদনাটা সত্যিই অবিশ্বাস্য। তাদের মতো দেশ থাকায় ক্রিকেটই ভাগ্যবান। আশা করি আমাদের সমর্থক তালিকায় তাদের ১৫০ কোটি মানুষ যোগ হবে! ফাইনালে তারা কি সত্যিই আমাদের সমর্থন জানাবে? এমনটা হলে মন্দ হয় না!’ 

    দুর্দান্ত শুরুর পরেও জাদেজা-ধোনির জুটিতে কপালে চিন্তার ভাজ পড়েছিল নিউজিল্যান্ডের। শেষ মুহূর্তে গাপটিলের সেই থ্রোতেই রান আউট হয়ে ফিরেছেন ধোনি, শেষ হয়ে গেছে ভারতের জয়ের শেষ আশাটুকুই। উইলিয়ামসন মানছেন, ধোনির আউটটাই ম্যাচের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্ত ছিল, ‘সে বিশ্বমানের ক্রিকেটার। এই পর্যায়ে তাঁর প্রচুর অভিজ্ঞতা আছে। জাদেজার সাথে তাঁর জুটিটা অবিশ্বাস্য ছিল। ধোনি এরকম পরিস্থিতিতে ম্যাচ বের করে আনতে পারে, সেটা আমরা আগেও দেখেছি। যেভাবেই হোক ধোনিকে ফেরানো গেছে, এটাই আসল ব্যাপার! তাঁর আউটটাই আমাদের জয় নিশ্চিত করেছে।’ 

    ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে ধোনির ধীরগতির ব্যাটিং নিয়ে সমালোচনা হয়েছিল। কালও শুরুর দিকে ধীরগতিতেই ব্যাটিং করেছেন তিনি, শেষ পর্যন্ত ম্যাচটাও জেতাতে পারেননি। এক সাংবাদিক উইলিয়ামসনকে প্রশ্ন করেছিলেন, এই মুহূর্তে ভারতের অধিনায়ক হলে কি তিনি ধোনিকে দলে নিতেন? উইলিয়ামসন হেসে উত্তর দিলেন, তিনি অবশ্যই ধোনিকে দলে চাইতেন, ‘ধোনি কি নিজের নাগরিকত্ব বদলাচ্ছেন নাকি? আসলে সে তো নিউজিল্যান্ডের হয়ে খেলতে পারবে না। আমি যদি ভারতের অধিনায়ক হতাম, অবশ্যই তাঁকে দলে চাইতাম!’