• ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯
  • " />
    X

     

    বিশ্বকাপ ফাইনালের টিকেটের দাম উঠলো ১৭ লাখ টাকা

    বিরাট কোহলিরা ফাইনালে উঠবেন, এমনটা হয়তো ধরেই রেখেছিলেন ভারতীয় সমর্থকরা। এই কারণে এক বছর আগেই বিশ্বকাপ ফাইনালের প্রায় অর্ধেক টিকেট কিনেছিলেন তারাই! ভারত তো সেমিফাইনালেই বাদ, লর্ডসের ফাইনালে কি দেখতে আসবেন ভারতীয়রা? অনেকেই হয়ত আসবেন না, নিজের টিকেট তাই বিক্রি করছেন। তবে সেই টিকেটের দাম হাঁকা হচ্ছে নির্ধারিত দামের কয়েক গুন বেশি, কোন ক্ষেত্রে সেটা উঠেছে ১৬ হাজার পাউন্ড বা প্রায় ১৭ লাখ টাকা পর্যন্ত। নিউজিল্যান্ড সমর্থকরা তো বটেই, খোদ কিউই অলরাউন্ডার জিমি নিশমও এক টুইটে আহবান জানিয়েছেন, খেলা দেখতে না এলে ভারতীয় সমর্থকরা যেন কম দামে টিকেট বিক্রি করে দেন। 

    বিশ্বকাপ শুরুর প্রায় এক বছর আগেই শেষ হয়ে যায় ফাইনালের টিকেট বিক্রি। সেই টিকেটের প্রায় ৪০ শতাংশের বেশিই কিনেছেন ভারতীয়রা। ভারত ফাইনালে না ওঠায় অনেকেই টিকেট বিক্রির করছেন নানা সামাজিক ওয়েবসাইটে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানাচ্ছে, শেষ মুহূর্তে একটি টিকেটের দাম যা হাঁকা হচ্ছে, তা নির্ধারিত দামের প্রায় ৫০ গুন!

    নিশম বলেছেন, ভারতীয় সমর্থকরা খেলা না দেখতে চাইলে যেন আইসিসির অফিশিয়াল সাইটে টিকেট বিক্রি করে, ‘প্রিয় ভারতীয় সমর্থকরা, আপনারা যদি ফাইনাল দেখতে না চান তাহলে দয়া করে টিকেট আইসিসির অফিশিয়াল প্ল্যাটফর্মে বিক্রি করুন। আমি জানি টিকেট বিক্রি করে অনেক লাভের সম্ভাবনা আছে। কিন্তু শুধু ধনবানদের নয়, সত্যিকারের ক্রিকেটপ্রেমীদের খেলা দেখার সুযোগ করে দিন।’ 

    ফাইনালের টিকেটের জন্য হন্যে হয়ে সাইটগুলো চষে বেড়াচ্ছেন, এমন নিউজিল্যান্ড সমর্থক কম নয়। ফিওনা নেলসনের কথাই ধরুন। পুরো ছয় সপ্তাহ ধরে পরিবারের সাথে ইংল্যান্ডে আছেন এই নিউজিল্যান্ড সমর্থক, মাঠে বসে দেখেছেন সাতটি ম্যাচ। ফাইনালের টিকেট যখন বিক্রি শুরু হয়, সেবারও কিনতে পারেননি। এখনো চড়া দামের জন্য টিকেট কেনা প্রায় অসম্ভব তাঁর জন্য, ‘আমি টিকেট পাওয়ার জন্য মরিয়া হয়ে আছি। আমি জানি অনেক ভারতীয় সমর্থকের কাছে টিকেট আছে। তারা সেটাকে দশগুন বেশি দামেও বিক্রি করতে চাচ্ছে। তাই আমার মনে হয় ফাইনালে খুব বেশি নিউজিল্যান্ড সমর্থক পাওয়া যাবে না। এটা খুবই দুঃখজনক ব্যাপার। ক্রিকেটারদের জন্যও এটা কষ্টকর। তারা মাঠে অনেক বেশি সমর্থন পাওয়ার যোগ্য।’ 

    ভারত-নিউজিল্যান্ড ম্যাচের দিনও স্টেডিয়ামে ছিলেন ফিওনা। সেদিন বৃষ্টির কারণে ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়েছিল। হোটেলে ফেরার সময় ভারতীয় সমর্থকদের তিনি বলেছিলেন, এই ম্যাচ পরিত্যক্ত হলেও ফাইনালে দুই দলের দেখা হবে। ভারত তো ফাইনালে ওঠেনি, নিউজিল্যান্ড ঠিকই উঠেছে। কিন্তু মাঠে বসে হয়ত খেলাটা আর দেখা হবে না ফিওনার।