• বাংলাদেশের শ্রীলংকা সফর
  • " />

     

    • বাংলাদেশের শ্রীলংকা সফর

    আগের অভিজ্ঞতা থেকেই প্রেরণা নিচ্ছেন তামিম

    কিছুতেই যেন কিছু হচ্ছে না তামিম ইকবালের। বিশ্বকাপে যখন তার ওপর ভরসা সবচেয়ে বেশি ছিল, সেই প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেননি একেবারেই। পরিহাস হচ্ছে, নিজের ক্যারিয়ারের সেরা বিশ্বকাপ কাটিয়েও তামিম মোটাদাগে ব্যর্থই হয়েছেন। তবে শ্রীলংকা সিরিজে দুঃস্বপ্ন তো যায়নি, বরং আরও বেশি বেড়েছে। অধিনায়ক হয়ে ব্যাট করাও যেন ভুলে গেলেন অনেকটা। তবে শেষ ম্যাচের আগে তামিম আশাবাদী, এ ধরনের পরিস্থিতিতে আগেও পড়েছেন। রান করেই সেখান থেকে বেরিয়ে আসতে পারবেন বলে তিনি আশাবাদী।

    সময়টা আসলেই ভালো যাচ্ছে না তামিমের। বিশ্বকাপে ৮ ম্যাচে করেছেন ২৩৫ রান। আগের সব বিশ্বকাপে এর চেয়েও ব্যর্থ ছিলেন। তবে ফর্মের বিচারে তামিমের কাছ থেকে চাওয়া ছিল অনেক বেশি। কিন্তু শুধু রানের বিচারে সেই প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেননি বলেই নয়, যেভাবে খেলেছেন তাতেও তার দিকে সমালোচনার দিক ছুঁড়ে গেছে।

    এমন নয়, তামিম এই অবস্থার মধ্য দিয়ে এবারই প্রথম গেছেন। জাতীয় দলে থিতু হওয়ার পর ব্যাড প্যাচ এসেছে বেশ কয়েকবারই। সর্বশেষ ২০১৫ বিশ্বকাপের সময়ও পড়তে হয়েছিল তুমুল সমালোচনায়। সেবার ৬ ম্যাচ খেলে করেছিলেন ১৫৪ রান। তবে বিশ্বকাপ শেষেই পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজে স্বমহিমায় উদ্ভাসিত হয়েছিলেন। এবারও বিশ্বকাপ সিরিজে সেরকম সুযোগ ছিল, কিন্তু শ্রীলংকায় সেটা কাজে লাগাতে পারেননি। পর পর ছয় ইনিংসে বোল্ড হয়েছেন, যেটি আর কোনো ওপেনারেরই নেই ওয়ানডেতে। এই বছরেই সব মিলে আটবার বোল্ড হলেন। তামিম নিজেও সেটা খেয়াল করেছেন, ‘আমি প্রতিদিনই অনুভব করার চেষ্টা করি, প্রতিদিনই মনে হয় আজকে হয়ে যাবে, আজকে হয়ে যাবে। কিন্তু কীভাবে যেন হচ্ছে না। আমি নিজের আউট হওয়ার ধরন বুঝছি।  গত ছয়টি আউট লক্ষ্য করে দেখবেন আমি একই আউট হয়েছি। কিন্তু ধরন আলাদা।’

    ২০১৫ সালে বা তারও আগে যেভাবে ফিরে এসেছিলেন, সেটি থেকেই এখন প্রেরণা নিতে চাইছেন তামিম, ‘ক্রিকেটার হিসেবে আপনাকে বিশ্বাস করতে হবে, এই অবস্থা থেকে আপনি ফিরে আসতে পারবেন। একমাত্র ভালো দিক হচ্ছে আমার ক্ষেত্রে এই অভিজ্ঞতা এবারই প্রথম নয়। আগেও হয়েছে। আমার নিজের ওপর বিশ্বাস রাখতে হবে। আমি যদি সেটাই রাখতে না পারি তাহলে আরও কাজ কঠিন হয়ে যাবে। আমি সব সময় বলেছি, মানুষ কখনো রান পাবে কখনো পাবে না। যখন আপনি এরকম অবস্থা থেকে বের হয়ে আসবেন আপনি এত বেশি রান করবেন যে সেটার জন্য আপনাকে সবাই মনে রাখবে।’

    কাল কি সেই অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে পারবেন তামিম?