• ক্রিকেট, অন্যান্য
  • " />

     

    সরফরাজই থাকছেন পাকিস্তানের অধিনায়ক

    বিশ্বকাপ ব্যর্থতার পর থেকেই শোনা যাচ্ছিল, পাকিস্তানের অধিনায়কের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হবে সরফরাজ আহমেদকে। শেষ পর্যন্ত তেমন কিছু করেনি পিসিবি। শ্রীলংকার বিপক্ষে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজে সরফরাজই থাকছেন দলের অধিনায়ক। সহ অধিনায়ক করা হয়েছে বাবর আজমকে।

    মিকি আর্থারকে কোচের পদ থেকে সরিয়ে দিয়েছিল পিসিবি। বিশ্বকাপে ভালো কিছু করতে না পারার দায়টা সরফরাজের কাঁধেও আসবে, ধারণা করা হচ্ছিল এমনটাই। শুধু অধিনায়ক হিসেবে নন, ব্যাট হাতেও সরফরাজের সময়টা ভালো যাচ্ছে না। শেষ ২৯ ইনিংসে সরফরাজের রান মাত্র ৬২১, ফিফটি করেছেন চারটি। 

    পাকিস্তানের নতুন কোচ ও প্রধান নির্বাচক মিসবাহ-উল-হক অবশ্য পূর্ণ ভরসাই রাখছেন সরফরাজের ওপর। আগামী পরশু শ্রীলংকার বিপক্ষে সিরিজের জন্য স্কোয়াড ঘোষণা করার আগেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, সরফরাজই থাকছেন দলের নেতৃত্বে।

    কোচের এমন আস্থা পেয়ে দারুণ খুশি সরফরাজ, ‘আমি জানি দল ওয়ানডেতে সবাইকে হতাশ করেছে। আগামী দিনগুলোতে ঘুরে দাঁড়াবে পাকিস্তান, আমি এমনটাই বিশ্বাস করি। নিজের ব্যাটিং ও অধিনায়কত্ব দিয়ে সর্বোচ্চ চেষ্টাটাই করব। দলের সবার ওপর আমার আস্থা আছে। সবকিছু থাকলেও ধারাবাহিকতার অভাবটাই আমাদের ভোগাচ্ছে। মিসবাহ চেষ্টা করবেন আমরা যেন এটা ফিরে পাই।’ 

     

     

    সন্ত্রাসী হামলার হুমকিতে অনিশ্চয়তার মাঝে পড়েছে শ্রীলংকার পাকিস্তানে আসা। সরফরাজ আশা করছে, শেষ পর্যন্ত শ্রীলংকা এই সিরিজ খেলতে আসবে, ‘আশা করছি তারা আসবে। সবসময় আমি ইতিবাচক চিন্তাটাই করি। পিসিবি চেষ্টা করছে পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফেরানোর জন্য। পাকিস্তান এখন ক্রিকেটের জন্য নিরাপদ, সরকার ও বোর্ড সর্বোচ্চ নিরাপত্তাই দেবে। পিসিবি তাদের সবটুকু দিয়েই চেষ্টা করছে। এখন আইসিসি ও অন্য বোর্ডগুলোকে এগিয়ে আসতে হবে। আমরা তো শ্রীলংকায় ইস্টারে হামলার পরেও নিজেদের যুব দলকে সফরে পাঠিয়েছিলাম, জিম্বাবুয়ে সফরেও গিয়েছিলাম। আমরাও তাই চাই অন্যরা আমাদের সাহায্যে এগিয়ে আসুক।’