• ক্রিকেট, অন্যান্য
  • " />

     

    সিমন্স-মানরোতে ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটে নতুন রেকর্ড ট্রিনবাগো নাইট রাইডার্সের

    স্কোর

    ট্রিনবাগো নাইট রাইডার্স ২০ ওভারে ২৬৭/২ (মানরো ৯৬*, সিমন্স ৮৬; জহির ১/৪২)

    জ্যামাইকা তালাওয়াস ২০ ওভারে ২২৬/৫ (ফিলিপস ৬২, গেইল ৩৯; হাসনাইন ২/৫২)

    ট্রিনবাগো ৪১ রানে জয়ী

    ম্যান অফ দ্যা ম্যাচ- কলিন মানরো

    জ্যামাইকা তালাওয়াস অধিনায়ক ক্রিস গেইল হয়তো একটু আফসোসই করতে পারেন। টসে জিতে তিনিই যে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়েছিলেন ট্রিনবাগো নাইট রাইডার্সকে। ব্যাটিং নেমে রীতিমত তান্ডব চালিয়েছে কাইরন পোলার্ডের নাইট রাইডার্স। লেন্ডন সিমন্স ও কলিন মানরোর বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে সিপিএলে নতুন রেকর্ড গড়েছে নাইট রাইডার্স। দুই উইকেটে ২৬৭ রান তুলেছে তারা, সিপিএল ও ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টিতে এটাই সর্বোচ্চ। টি-টোয়েন্টিতে সব মিলিয়ে এটি তৃতীয় সর্বোচ্চ দলীয় স্কোর।

    সিপিএলের দশম ম্যাচে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে সুনীল নারাইন ও সিমন্স শুরুটা দারুণ করেছিলেন। পাঁচ ওভারের মাঝেই ওঠে ৫০ রান। ৫৫ রানের ওপেনিং জুটি ভাঙ্গে জহির খানের বলে ২০ রান করা নারাইন বোল্ড হলে। দ্বিতীয় উইকেটে সিমন্স-মানরো রানের গতি আরও বাড়িয়েছেন। চার ছক্কার বন্যা বইয়ে তালাওয়াস বোলারদের করেছেন রীতিমত অসহায়। 

    ৮ চার ও ৫ ছয়ে ৪২ বলে সিমন্স করেছেন ৮৬ রান। মানরোর সাথে ১২৪ রানের জুটি করেন তিনি। ১৫ তম ওভারে সিমন্সকে রান আউট করে এই জুটি ভাঙ্গেন ওশান থমাস। সিমন্স ফিরলেও পোলার্ডকে নিয়ে তালাওয়াস বোলারদের ওপর চড়াও হয়েছেন মানরো। ৬ চার ও ৮ ছয়ে মানরো শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন ৯৬ রানে, খেলেছেন মাত্র ৫০ বল। অন্য প্রান্তে পোলার্ড খেলেছেন ১৭ বল, এতেই ৪টি চার ও ৩টি ছয়ে করেছেন ৪৫ রান।

     

     

    ২০ ওভার শেষে নাইট রাইডার্সের স্কোর দাঁড়ায় ২৬৭, সিপিএলে এক ইনিংসে এটাই সর্বোচ্চ। শুধু সিপিএলে নয়, ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটেও এক ইনিংসে এতো রান ওঠেনি। নাইট রাইডার্স পেছনে ফেলেছে ২০১৩ সালে আইপিএলে করা রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর করা ২৬৩ রানের স্কোরকে। 

    টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে নাইট রাইডার্সের এই রান তৃতীয় সর্বোচ্চ স্কোর। এই বছরের ফেব্রুয়ারিতে ডারবানে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে  ৩ উইকেটে ২৭৮ রান করেছিল আফগানিস্তান, এটাই সব ধরনের টি-টোয়েন্টিতে সর্বোচ্চ স্কোর। গত ৩০ আগস্ট তুরস্কের বিপক্ষেও ২৭৮ রান তুলেছিল চেক রিপাবলিক, তারা হারিয়েছিল চার উইকেট। 

    রেকর্ড রান তাড়া করতে নেমে তালাওয়াসকে স্বপ্ন দেখাচ্ছিলেন গেইল-গ্লেন ফিলিপস জুটি। ৭ ওভারের মাঝে ওপেনিং জুটিতে ওঠে ৮৮ রান। তবে এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে শেষ পর্যন্ত লক্ষ্যটা ছোঁয়া হয়নি তাদের। ২২৫ রানে থামে গেইলদের ইনিংস। ৪১ রানে জয় পায় পোলার্ডের দল।