• চ্যাম্পিয়নস লিগ
  • " />

     

    কিক অফের আগে: ন্যু ক্যাম্পে বার্সাকে পেরিয়ে যাওয়ার হাতছানি ইন্টারের

    কবে, কখন 
    বার্সেলোনা-ইন্টার মিলান 
    চ্যাম্পিয়নস লিগ, গ্রুপ 'এফ'
    ন্যু ক্যাম্প


    প্রথম ম্যাচে বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের ছায়ায় কাটিয়েও জার্মানি থেকে এক পয়েন্ট নিয়ে ফিরেছিল বার্সেলানা। আর ইন্টার মিলান ঘরের মাঠে ড্র করেছিল স্লাভিয়া প্রাগের সঙ্গে। ইন্টারের জন্য ফলটা ছিল হতাশার। কিন্তু সপ্তাহ দুয়েক পর পর যখন চ্যাম্পিয়নস লিগে আবার ফিরছে, তখন ন্যু ক্যাম্পেও ফেভারিট তকমা নিয়ে খেলতে যাচ্ছে ইন্টার মিলান।  

    এর পেছনে বড় কারণ আন্তোনিও কন্তের অধীনে ইন্টারের দুর্দান্ত ফর্ম। সিরি আতে টানা ছয় ম্যাচ জিতে সবার ওপরে আছে ইন্টার। কন্তের রক্ষণাত্মক স্টাইলও বেশ তাড়াতাড়িই রপ্ত করা হয়ে গেছে দলের। তার প্রতিপক্ষ কোচ এর্নেস্তে ভালভার্দের জায়গাটা নতুন করে নড়বড়ে হয়ে গেছে বার্সেলোনার নতুন মৌসুমে। লিগে সাত ম্যাচের দুইটিতে হার, পয়েন্ট টেবিলের চারে থাকলেও বার্সার চেনা রূপের দেখা মেলেনি এখনও। লিভারপুলের কাছে গত মৌসুমে সেমিফাইনালের হারের পর থেকেই তো আসলে আর ধাতস্থ হয়ে উঠতে পারেনি বার্সা।  

    তার ওপর লিওনেল মেসির ইনজুরি সমস্যা দুশ্চিন্তার ভাঁজ বাড়িয়েছে বার্সেলোনার। ইন্টারের বিপক্ষে  এ ম্যাচেও মেসির খেলার সম্ভবনা নেই বললেই চলে। একই অবস্থা উসমান ডেম্বেলেরও। আর নতুন আসা অ্যান্টোয়ান গ্রিযমানের ওপর তাই চাপ বাড়ছেই। মানিয়ে নিতে সময় নিচ্ছেন বার্সায়, নিজের পছন্দের জায়গাতেও খেলা হচ্ছে না।

    ভালভার্দে অবশ্য বলছেন গ্রিযমানকে তিনি বাম দিকেই খেলাতে চান। ফ্রেঞ্চম্যানের জন্য সময়টা তাই কঠিনই।

    বার্সেলোনার জন্য গ্রুপটাও কঠিন। ডর্টমুন্ড, ইন্টার কঠিন প্রতিপক্ষ। আর মেসিবিহীন বার্সার অস্থির অবস্থা তো পুরনো গল্পও। তাই আড়ালে গ্রুপপর্ব থেকে বিদায়ের শঙ্কাও ভর করেছে বার্সায়। তবে ভালভার্দে ভরসা রাখতে চান ঘরের মাঠে রেকর্ডের ওপর। ২০১৩ সালের পর ঘরের মাঠে আর কোনো ম্যাচ হারেনি বার্সেলোনা। ৩২ ম্যাচে ২৯ জয়, ইন্টারের মুখোমুখি হওয়ার আগে সংবাদ সম্মেলনে ভালভার্দে মনে করে দিয়েছেন ঘরের মাঠে বার্সার ফর্মের কথা, "ইন্টার মিলান ফেভারেট? আমার মনে হয় না। আমাদের ঘরের মাঠের রেকর্ডের ওপর ভরসা রাখতে হবে।"   

    কন্তে-ভালভার্দের অবশ্য আগেও দেখা হয়েছে চ্যাম্পিয়নস লিগে। ২০১৭-১৮ মৌসুমে দ্বিতীয় রাউন্ডে চেলসির ম্যানেজার হয়ে বার্সার মুখোমুখি হয়েছিলেন কন্তে। সেবার তার ৩-৫-২ ফর্মেশনে বার্সাকে প্রায় আটকে ফেলেছিলেন তিনি। দুই লেগ মিলিয়ে ম্যাচটা বের করে এনেছিলেন মেসি। এবার মেসি নেই। কন্তে তাই ন্যু ক্যাম্পের ধারাটা ভাঙতেই পারেন। 

    রোমেলু লুকাকু, লাউতারো মার্টিনেজরা আক্রমণে দ্যুতি ছড়াচ্ছেন। সাবেক বার্সা ফরোয়ার্ড অ্যালেক্সিস সানচেজ আগের ম্যাচে প্রথম গোল পেয়েছেন ইন্টারের হয়ে। আর উইং দিয়ে কান্দ্রেভা, সেনসিরাও এখন পর্যন্ত যা দেখিয়েছেন সেটা নির্দেশ করছে কন্তের স্টাইলের সঙ্গে বেশ মানিয়ে নিয়েছে দলটি। আর লিগে টানা জয়ের আত্মবিশ্বাস তো আছেই। ৬ বছর পর ন্যু ক্যাম্পে তাই প্রথম জয়ের স্বপ্ন ইন্টার দেখতেই পারে। 

    দলের খবর 
    মেসি, ডেম্বলে দুইজনই অনুশীলন করেছেন ম্যাচের আগেরদিন। তবে সেটা মোটেই পরের দিন ম্যাচ খেলার জন্য পর্যাপ্ত নয় বলে জানিয়েছেন ভালভার্দে। স্যামুয়েল উমতিতি, জর্দি আলবারা আগে থেকেই নেই। ইন্টার মিলান অবশ্য পুরোপুরি ফিট স্কোয়াড নিয়ে গেছে বার্সেলোনায়। 

    সম্ভাব্য একাদশ 
    বার্সেলোনা

    টের স্টেগান, সেমেদো, পিকে, লেংলে, ফিরপো, বুস্কেটস, ডি ইয়িং, আর্থার, পেরেজ, সুয়ারেজ, গ্রিযমান 
    ইন্টার মিলান 
    হান্দানোভিদ, ডি ভ্রাই, গডিন, স্ক্রিনিয়ার, ক্যান্দ্রেভা, গ্যালিয়ার্দিনি, ব্রোজোভিচ, সেনসি, আসামোয়াহ মার্টিনেজ, লুকাকু  
       
    হেড টু হেড     
    ১৩ বার একে অপরের বিপরীতে খেলেছে দুইদল। বার্সা জিতেছে ৬ বার, ইন্টার দুইবার। 

    প্যাভিলিয়ন প্রেডিকশন 
    বার্সা ১-২ ইন্টার